Breaking News

ইয়াসের টানে জলোচ্ছ্বাসঃমান্দারমনিতে জলে ডুবে মৃত্যু মৎস্যজীবির

Post Views: website counter

ঘুর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সমুদ্রের জলোচ্ছ্বাসে তলিয়ে গেল এক মৎস্যজীবি।মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনার কবলে পড়ে মৃত্যু হল এই মৎস্যজীবীর। বুধবার দুপুর ১২ টা নাগাদ পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মান্দারমনি উপকূল থানার দক্ষিন কালিন্দী এলাকায় এই দুর্ঘটনাটি ঘটে।

মৃত মৎস্যজীবী মান্দারমনি উপকূল থানার দক্ষিন কান্দি গ্রামের বাসিন্দা। নাম কানাই গিরি (৫৫)। কানাই বাবুর সাথে আরও একজন তলিয়ে গিয়েছে বলে অসমর্থিত সূত্রে জানা গিয়েছে। সেই ব্যাক্তিকে দিঘা স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎস্যার জন্যে ভর্তি করা হয়েছে।

ইয়াস ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে পূর্ব মেদিনীপুর উপকূলবর্তী এলাকায় সকাল থেকে তুমুল জলোচ্ছ্বাস শুরু হয়েছিল। লোকালয়ে জল ঢুকতে শুরু করেছিল। এদিন দুপুরে সমুদ্র সংলগ্ন দক্ষিণ কালিন্দীর এক মাছের ঘেরিতে দাঁড়িয়ে ছিলেন কয়েকজন মৎস্যজীবী । আচমকাই জলোচ্ছ্বাসের পড়ে তিনজনই তলিয়ে যায়। একজন কোন রকমে সাঁতার কেটে পারে উঠলেও দুজন আর উঠতে পারেননি।

পরে কানাই গিরি নামে এক মৎস্যজীবী নিথর মৃতদেহ উদ্ধার হয়। বাকী একজনের প্রথমে খোঁজ পাওয়া যায়নি,পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় । মৃতদেহ বাড়িতে পৌঁছাতে কান্নায় ভেঙে পড়েন তার পরিবারের সদস্যরা। মান্দারমনি উপকূল থানার এক পুলিশ আধিকারিকের কথায় ফিশারীতে থাকাকালীন আচমকাই তলিয়ে যান। পরে তার মৃত্যু হয়েছে। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।

আগে পূর্বাভাস ছিল বুধবার দুপুরের মধ্যে স্থলভাগে আছড়ে পড়বে ইয়াস। কিন্তু গতি বাড়িয়ে বুধবার সকাল ৯টা ১৫ থেকেই শুরু হয়েছে স্থলভাগে আছড়ে পড়ার প্রক্রিয়া। ফলে ভরা কোটাল ও ঘূর্ণিঝড়ের স্থলভাগে আছড়ে পড়া প্রায় একই সময় হয়েছে। আর এই জোড়া ফলায় দুর্যোগ ও দুর্ভোগ বেড়েছে উপকূল এলাকার বাসিন্দাদের। একদিকে পূর্ব মেদিনীপুরে দিঘা, শঙ্করপুর, মন্দারমণি, তাজপুর এলাকা জলমগ্ন, অন্য দিকে দক্ষিণ ২৪ পরগনায় সাগরদ্বীপ, কাকদ্বীপ, নামখানা, পাথরপ্রতিমা, বকখালি প্রভৃতি এলাকায় একের পর এক গ্রামে জল ঢুকেছে। ফলে সমস্যায় পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *