Breaking News

কাঁথির ঝুপড়িবাসীদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরানোর উদ্যোগ প্রশাসনের

Post Views: website counter

 

দিঘা সহ পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ঘুর্ণিঝড় যশ এর দাপটে উপকূলীয় এলাকায় ব্যাপক প্রভাব পড়েছে । এর প্রভাব পড়েছে কাঁথিতেও। এই পরিস্থিতির মুখে দাঁড়িয়ে ঝুপড়িবাসীদের ভয়ংকর প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা করার একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে পৌর প্রশাসন।

ঝড়ের আগে কাঁথি পৌরসভার ১,২,৩,৪,৫,৬,৭,৮ নং ওয়ার্ড সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে ঝুপড়ীবাসীদের আশ্রয় কেন্দ্রে স্থানান্তরিত করণের আশু পরিকল্পনা গ্রহণের লক্ষে আজ এলাকা পরিদর্শন করেন কাঁথি পৌরসভার প্রশাসকমন্ডলীর সদস্যবৃন্দ । এই দলে ছিলেন যথাক্রমে মামুদ হোসেন, সুপ্রকাশ গিরি, হাবিবুর রহমান ও রত্নদীপ মান্না ।

কাঁথি পৌর প্রশাসকমন্ডলীর সদস্য মামুদ হোসেন জানান পরিদর্শক টীম আরো কয়েকটি আশ্রয় কেন্দ্র গড়ে তোলা উচিত বলে অভিমত প্রকাশ করেছেন। বিশেষ করে দারুয়া এলাকায় কাঁথি রহমানিয়া হাই মাদ্রাসার পাশাপাশি কাঁথি মুসলিম গার্লস হাই স্কুলে অতিরিক্ত আশ্রয় কেন্দ্র গড়ে তোলা উচিত বলে অভিমত প্রকাশ করেন পরিদর্শক টীম। অপরদিকে পদ্মপুকুরিয়া সহ পশ্চিম প্রান্তের ওয়ার্ড সমূহের জন্য কাঁথি প্রভাত কুমার কলেজের সাথে কাঁথি রাখাল চন্দ্র বিদ্যাপীঠে আশ্রয় কেন্দ্র গড়ে তোলা প্রয়োজন।

সেই সঙ্গে সেরপুর তেলেঙ্গানাবাড়,সেরপুর এতওয়াড়ীবাড় ইত্যাদি এলাকার জন্য কাঁথি ক্ষেত্র মোহন বিদ্যাভবনে আশ্রয়কেন্দ্র গড়ে তোলার প্রস্তাব দিয়েছেন পৌর প্রশাসকমন্ডলী।বাংলা আবাস যোজনার প্রথম কিস্তি পাওয়ার পর যারা পরবর্তী কিস্তি না পাওয়ায় বাড়ী তৈরী করতে পারেননি তাদের অবিলম্বে ত্রিপল দেওয়া প্রয়োজন।

তাছাড়া অবিলম্বে খাদ্য সামগ্রী প্রদান করা একান্ত আবশ্যক।তাছাড়া কোভিড পরিস্থিতিতে আশ্রয় কেন্দ্র না বাড়ালে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা থেকে যাবে।কাঁথি পৌর এলাকায় অতিরিক্ত আশ্রয় কেন্দ্র স্হাপন ও ত্রিপল সহ অন্যান্য ত্রাণসামগ্রী বরাদ্দের দাবীতে পৌর প্রশাসকমন্ডলী র পক্ষ থেকে রাজ্য সরকারের দুই মন্ত্রী ডঃ সৌমেন মহাপাত্র ও অখিল গিরি কে ই-মেইল বার্তা পাঠানো হয়েছে বলে জানান মামুদ হোসেন। সেই সাথে জেলাশাসক ও মহকুমাশাসক কে এই মর্মে বার্তা প্রেরণ করা হয়েছে।

কাঁথি পৌর প্রশাসনের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *