Breaking News

কলেজ থেকে ফাইল সরাতে গিয়ে আটক দুই অশিক্ষক কর্মী

Post Views: website counter

 

চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে টাকা তোলার অভিযোগ সহ একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ তুলে দুই দিন আগে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার দেশপ্রাণ কলেজের অধ্যক্ষের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলো পড়ুয়ারা। এর রেশ কাটতেভনা কাটতেই রাতের অন্ধকারে কলেজ থেকে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল সরাতে গিয়ে গ্রামবাসীদের হাতে পাকাড়াও হল দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত কলেজের দুই অ-শিক্ষক কর্মী। চাঞ্চল্যকর ও নক্কারজনক ঘটনাটি ঘটছে কাঁথি দেশপ্রান কলেজে। যাকে ঘিরে উত্তেজনা চরম আকার ধারন করেছে। উত্তেজনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় । কলেজের দুই অশিক্ষক কর্মীকে আটক করে থানার নিয়ে যায় এবং ফাইল আটক করে। উল্লেখ্য কাঁথি ৩ নং ব্লকে অবস্থিত এই কলেজের পরিচালন কমিটির দীর্ঘদিন সভাপতি ছিলেন তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী।তবে রাজ্যের প্রাক্তন পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগদানের কিছুদিন পর সেই পদ থেকে পদত্যাগ করেন তিনি ।

তবে দেশপ্রাণ কলেজে অধ্যক্ষ ডঃ সুবিকাশ জানার বিরুদ্ধে বিগত কয়েক মাস ধরেই দুর্নীতির অভিযোগ তুলে আন্দোলনে নেমেছে তৃনমূল ছাত্র পরিষদ । দুনীতি তদন্তের দাবি জানিয়ে কাঁথির মহকুমা শাসক সহ উচ্চ মহলে অভিযোগ দায়ের করেছে। এর পরেও এখনও তদন্ত শুরু না হওয়ায় নজিরবিহীন ভাবে এই দাবিতে কাঁথি শহরে অধ্যক্ষ বাড়ি ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখায় তৃনমূল ছাত্র পরিষদ সদস্য-সদস্যারা। জানা গেছে এর পরেই বিদ্যাসাগর বিশ্বাবিদ্যালয়কে তদন্ত কমিটির গঠনের নির্দেশ দিয়েছে উচ্চশিক্ষা দপ্তর।

অভিযোগ সেই নির্দেশের কথা জানার পরেই কলেজে অধ্যক্ষ সহ প্রধান করনিক নন্দদুলাল বারিক ও একাউন্টেন্ট সৌমিত্র সিনহা বৃহস্পতিবার রাতের অন্ধকারে কলেজে গিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। কলেজে থেকে কাগজপত্র সরানো হচ্ছে সন্দেহ করে স্থানীয় গ্রামবাসীরা ও তৃনমূল ছাত্র পরিষদ নেতৃত্ব কলেজ ঘেরাও করে। তার মধ্যে কলেজের অধ্যক্ষ সহ তিনজন বাইক ফেলে দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টা চালায় বলে অভিযোগ তৃনমূল ছাত্র পরিষদের।

খবর পেয়ে ঘটনার স্থলে হাজির হয় কাঁথি ৩ ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শ্যামল দাস, তৃনমূল ছাত্র পরিষদ রাজ্য নেতৃত্ব আবেদ আলি খাঁন, নিমাই দাস সহ একাধিক ছাত্র পরিষদ নেতৃত্বরা। ঘটনার জানতে পেরে হাজির মারিশদা থানার ওসি অমিত দেব নেতৃত্বের বিশাল পুলিশ বাহিনী। তৃনমুল ছাত্র পরিষদের অভিযোগ অধ্যক্ষ পালিয়ে গেলেও পুলিশ এসে তিনটি নাইলন ব্যাগ ভর্তি ফাইল সহ দু’জন অভিযুক্ত অশিক্ষক কর্মীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

তৃনমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য নেতা আবেদ আলি খাঁন বলেন ” দূনীতি চাপা দিতে রাতে অন্ধকারে ফাইল পাচার করছিল। প্রকৃত তদন্ত চাই”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *