Breaking News

নতুন জেলা শাসকের হস্তক্ষেপঃ নন্দীগ্রাম কেন্দ্রের পুর্নগননার দাবিতে চলা ধর্না প্রত্যাহার

Post Views: website counter

 

চার দিন ধরে চলা তৃনমূল কর্মীদের ধর্নার জেরে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার শিল্প শহর হলদিয়ায় গণনা কেন্দ্রে আটকে থাকা ভিভিপ্যাড মেশিন, ইভিএম সহ নির্বাচনী প্রক্রিয়ার বিভিন্ন জিনিসপত্র বিশাল পুলিশি নিরাপত্তায় বুধবার বের করা হলো। গত ২ মে রবিবার ভোট গণনা হবার পর তৃনমূল কর্মীদের গননা কেন্দ্র ঘেরাও করে বিক্ষোভের জেরে নির্বাচনী প্রক্রিয়ার সমস্ত মালপত্র আটকে পড়েছিল হলদিয়া গভমেন্ট হাই স্কুলে।

বিজেপির অভিযোগ নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রে তাঁদের প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীকে নির্বাচন কমিশন জয়ী ঘোষনা করার পর থেকেই উত্তেল নন্দীগ্রাম – হলদিয়া। ২ মে অর্থাৎ রবিবার সন্ধ্যা থেকেই পুনর্গণনার দাবিতে দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে হলদিয়ার গভমেন্ট স্পনসর্ড হাইস্কুলের গণনা কেন্দ্রের আশপাশ।অভিযোগ রবিবার রাতে হলদিয়ার মঞ্জুশ্রী মোড়ে বেশ কয়েকটি মোটর বাইকে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়।

পাশাপাশি একাধিক বিজেপি কর্মী সমর্থকদের দোকান ভাঙচুর করা হয়। একই ঘটনা নন্দীগ্রামেও
ঘটেছে বলে বিজেপির তরফে অভিযোগ করা হয় ।রবিবার রাত থেকে চলা সেই আন্দোলন প্রত্যাহার করলো তৃনমূল।

বুধবার রাতেই এই জেলায় নতুন জেলাশাসক হয়ে এসেছেন পূর্ণেন্দু কুমার মাঝি। উল্লেখ্য গত মাসে নির্বাচন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার জেলা শাসক বিভু গোয়েলকে সরিয়ে স্মিতা পান্ডেকে এই পদে বসিয়েছিলো। নির্বাচনে তৃতীবার কঢমতায় ফিরেই মুখ্যমন্য্র পদে শপথ নেওয়ার পরে ফের পূর্ব মেদিনীপুর জেলার জেলা শাসক পদে বদল আনলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বৃহস্পতিবার নতুন জেলাশাসক পূর্ণেন্দু কুমার মাঝি অবস্থানরত তৃনমূল নেতৃত্বের সাথে কথা বলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন ।তাঁর উদ্যোগ ও
তৎপরতায় নির্বাচনী সামগ্রী গুলি স্কুল থেকে বের করে হলদিয়া একটি ওয়ার হাউসে রাখা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *