Breaking News

করোনা সংক্রমনে সংকটের মুখে কাজু শিল্প

Post Views: website counter

 

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি ও এগরা মহকুমার বিশাল এলাকার মানুষ কাজু শিল্পের সাথে প্রত্যক্ষ – পরোক্ষ ভাবে যুক্ত থেকে কর্মসংস্থান করেন । কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে কোভিড ১৯ ভাইরাসের সংক্রমনের জেরে এখানকার কাজুবাদাম শিল্প গভীর সঙ্কটের মুখোমুখি হয়েছে।

দেশপ্রাণ ব্লকের দারিয়াপুর থেকে কাঁথি- ১ ব্লকের হীরাকনিয়া ও রামনগরের দেউলীহাট পর্যন্ত বালিয়াড়ি এলাকায় কাজুবাদাম শিল্প হাজার হাজার শ্রমিকদের বিশেষ করে মহিলা শ্রমিকদের কর্মসংস্থানের ভরসাস্থল হয়ে উঠেছে।

দেশপ্রাণ ব্লকের বসন্তিয়া, গোবিন্দবেরাবাড়, রঘুরামপুর, কাঁথি পৌরসভার দারুয়া, কিশোরনগর ,ধর্মদাসবাড় ,কাঁথি-১ ব্লকের শ্রীরামপুর, গিমাগেড়িয়া ,বাধিয়া ,তাজপুর, মাজনা,রামনগর-২ ব্লকের মৈতনা,দেপাল,রামনগর-১ ব্লকের দেউলীহাট ,মীরগোদা প্রভৃতি জায়গায় কাজুবাদাম প্রসেসিং শিল্পে প্রচুর কর্মসংস্থানের সুযোগ কোভিড পরিস্থিতিতে সংকুচিত হয়েছে।

কাজুবাদাম প্রসেসিং করার পর সুস্বাদু খাবার হিসাবে দিল্লী,কানপুর, লক্ষৌ,আগ্রা,চণ্ডীপুর প্রভৃতি মেগা শহরে বিক্রয় করা হয়ে থাকে। আবার উন্নত মানের কাজু বিদেশেও রপ্তানী করা হয়।কাজু শিল্পের মালিক প্রসেসড কাজু কোভিড পরিস্থিতিতে বাজারজাত করতে পারছেন। কাজুর চাহিদার অভাবে কাজুবাদাম শিল্প ধুঁকছে।

কাজুবাদাম কারখানায় নিযুক্ত শ্রমিকদের সংখ্যা প্রতিদিনই কমতে আছে।করোনা সংক্রমণ ও চাহিদার অভাবে কাজুবাদাম শিল্প এখন আইসিইউ তে সরকারী হস্তক্ষেপের প্রহর গুনছে।

প্রাক্তন সহকারী সভাধিপতি মামুদ হোসেন জেলাশাসক ও রাজ্য সরকারের মুখ্যসচিব কে ই-মেইল বার্তা পাঠিয়ে রুগ্ন কাজুবাদাম প্রসেসিং শিল্প কে বাঁচিয়ে রাখার জন্য সরকারী হস্তক্ষেপের দাবী জানিয়েছেন। কর্মহীন কাজুবাদাম প্রসেসিং শিল্পের শ্রমিকদের সরকারী অনুদান প্রদান সহ মালিকদের আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া অনিবার্য বলে অভিমত প্রকাশ করেন প্রাক্তন সহকারী সভাধিপতি মামুদ হোসেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *