Breaking News

বিয়ের সাজে সাজছে পাউসি অনাথ আশ্রম কন্যা

Post Views: website counter

 

বাঙালির ঘরে আর পাঁচ জন কন্যাদায়গ্রস্ত পিতা যখন চিন্তায় ভেঙ্গে পড়েন। তখন কন্যা দায় নিয়ে মাথা ঘামাতে তিনি রাজি নন কোনদিনই। গত কয়েক দশকে বলরাম করন একের পর এক মেয়ে বিয়ে দিয়েছে আর সেই আয়োজনে কখনো কোন ফাঁক রাখেন নি।

বর্তমান করোনা মহামারীর কথা মাথায় রেখে সমস্ত সুরক্ষা বিধি মেনে শুক্রবার ভগবানপুর ২ নম্বর ব্লকের অন্তর্গত পাউসি অন্ত্যদয় অনাথ আশ্রমের আবাসিক শম্পা বর কনের সাজে সেজে নতুন জীবনের পথে পা রাখল।

জানা গেছে মাত্র দেড় বছর বয়সে আশ্রমে শম্পা পা রাখে। পিতৃহীন শম্পা দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে আশ্রমের মধ্যে বড় হয়ে ওঠা , এবং উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে তারপর আশ্রমের অনেক কাজের মধ্যে নিজেকে নিয়োগ করে থাকে। কাছাকাছি হরিনাদলবাড় গ্রামের ছেলে প্রসেনজিৎ বেজের সঙ্গে তার বিবাহ আজ ।

আশ্রমের কর্ণধার বলরাম বাবু জানিয়েছেন করোনার প্রভাবে আমরা কোন শুভানুধ্যায়ীকে আমন্ত্রণ জানাতে পারিনি, কিন্তু অনেক শুভানুধ্যায়ী জানতে পেরে তাদের সাধ্যমতো দুই হাত বাড়িয়ে সাহায্য করেছেন। একটি মেয়েকে বিয়ে দিতে হলে যা যা দান সামগ্রী লাগে যেমন খাটপালঙ্ক, আলমারি, ড্রেসিং আয়না, সোনা দানা দিয়ে মেয়েকে সাজানো ও পাত্রকে সাজানো সমস্ত প্রকার দান সামগ্রী দিয়ে তাকে আজ পাত্রস্থ করা হলো। কোনরকম কার্পণ্য করা হয় নি বলেও জানান।

এই মহামারীর মধ্যেও আশ্রম প্রাঙ্গণে গায়ে হলুদ এবং মেহেন্দির অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু বিয়ের অনুষ্ঠানটি দুটি গ্রামের পর সরপাই গ্রামের সর্বমঙ্গলা মন্দির এ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আশ্রম এর কর্ণধার বলেন বিয়ে হলেই যে সব সম্পর্ক চুকে যাবে এমন কিন্তু নয়। মেয়েরা যেমন বাপের বাড়ি আসে তেমনি আসবে। জামাইষষ্ঠী, ভাই ফোটার মত সব অনুষ্ঠান পালন করবেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *