Breaking News

‘আঁখিপট’-পত্রিকার বর্ষবরণ ও সাহিত্যবাসর

Post Views: website counter

 

বহু গুণীজনের উপস্থিতিতে পূর্ব মেদিনীপুরের কোলাঘাটে, রাইন পিঙ্গলাক্ষী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিশ্বজিৎ বৈদ্য সম্পাদিত ‘আঁখিপট’ সাহিত্য পত্রিকার সপ্তম সংখ্যার প্রকাশ, সেইসঙ্গে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান ও সাহিত্যবাসরের আয়োজন করেছিল ‘আঁখিপট’।

এই উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি অমৃত মাইতি। আমন্ত্রিত বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতি-পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও রবীন্দ্র গবেষক ড. বিবেকানন্দ চক্রবর্তী। প্রধান অতিথিসহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ বৃক্ষে জলদান ও সাতটি প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করে অনুষ্ঠানের  সূচনা করেন।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন ‘আঁখিপট’ সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক বিশ্বজিৎ বৈদ্য। ড. বিবেকানন্দ চক্রবর্তী ‘বৈশাখ ও রবীন্দ্রনাথ’ এই বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে রবীন্দ্রনাথের ঋতুবৈচিত্র্য ভাবনাসহ বৈশাখ ও বাঙালি সংস্কৃতি যে অভিন্ন ক্যানভাসে বাঙালির প্রাণের উৎসব সেই বিষয়ে আলোকপাত করেন। কবি, সাহিত্যিক ও ‘মেঘদূত’ পত্রিকার সম্পাদক সঞ্জয় কুমার মুখোপাধ্যায় আলোচনা করেন ‘কবি জীবনানন্দ দাশের জীবনে রবীন্দ্রনাথ’ এই বিষয়ে। কবি ও সম্পাদক তাপস বৈদ্য ‘তরুণ সমাজ কি শুধুই পিডিএফ পড়া অভ্যাস করে ফেলেছে?’ এই বিষয়ে আলোচনা করেন।

কবি ও চিত্রশিল্পী অঙ্কন মাইতি ‘প্রচ্ছদের অর্থ কি আদৌ সকল পাঠক বা লেখকের বোধগম্য হয়’ এই বিষয়ে আলোচনা করেন। কবি, সম্পাদক ও লোধা-শবর সমাজের রাজ্য সভাপতি মৃণাল কোটাল ‘লিটল ম্যাগাজিনের ভবিষ্যৎ’ বিষয়ে সুন্দর বক্তব্য রাখেন। বিশিষ্ট শিক্ষক ড. মৌসম মজুমদার তাঁর বক্তব্যে ‘লিটল ম্যাগাজিনের সম্পাদকের দায়িত্ব ও কর্তব্য’ বিষয়ে আলোকপাত করেন। সাহিত্যকর্মী সুমিতা পাঠক ‘ফেসবুক সত্যি ব্যবহার করা উচিত’ এ বিষয়ে বক্তব্য রাখেন।

কবিতা ও আবৃত্তি করেন বাচিকশিল্পী দেবাশীষ চক্রবর্তী, অধ্যাপক মানস মাইতি, অমিত কিরণ ব্যানার্জী, দীপক সেন, তরুণা গাঙ্গুলী, উমা সিনহা সহ অন্যান্য বাচিক শিল্পীবৃন্দ।

ঐ অনুষ্ঠানে প্রায় ৮০ জন কবি-সাহিত্যিক কবিতাপাঠ, গান, আবৃত্তি ও অনুগল্প পাঠে অংশগ্রহণ করেন। নববর্ষের প্রথম দিনে কবি-সাহিত্যিক-শিল্পী সমন্বয়ে ‘আঁখিপট’-এর বর্ষবরণ অনুষ্ঠান এক আনন্দময় মুগ্ধতায় আবিষ্ট করেছিল উপস্থিত সাহিত্য ও সংস্কৃতি প্রেমী মানুষদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *