Breaking News

রাজ্যের পরিবর্তনের জন্যে নন্দীগ্রামে বিজেপিকে জেতানঃ অমিত শাহ

Post Views: website counter

 

প্রচন্ড গরম ।তার মধ্যেই মঙ্গলবার সকালে নন্দীগ্রামের রেয়াপাড়া বড় পুল থেকে শিব মন্দির পর্যন্ত শুভেন্দুকে নিয়ে র‍্যালি করেন সরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। আগামী বৃহস্পতিবার এখানে ভোট গ্রহন।আজ ছিলো প্রচারের শেষ দিন ।রাজ্যের ২৯৪টা বিধানসভা ৮ দফায় ভোট গ্রহন করবে কমিশন। গত ২৭ তারিখ প্রথম দফার ভোট গ্রহন হয়ে গেছে।এবার দ্বিতীয় দফা।

তীব্র গরমের মধ্যেও রাস্তার ধারে থাকা বহু মানুষের সঙ্গে কোথাও বলেন তিনি। এদিন নন্দীগ্রামের একপ্রান্তে যেমন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রচারের ঝড় তোলেন তেমনি অপর প্রান্তে শাহের র‍্যালিতেও কার্যত জনসমুদ্রের আকার নেয়। মঙ্গলবার র‍্যালি শেষ করার পর রেয়াপাড়ার প্রাচীন শিব মন্দিরে পুজো দেন অমিত। নিজের হাতেই মহাদেবের উদ্দেশ্যে আরতী করেন।

এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অমিত শাহ বলেন, “রোড- শোতে নন্দীগ্রামের জনতা যে অভূতপূর্ব উচ্ছ্বাস দেখিয়েছেন তাতে সুনিশ্চিত বিশাল বড় মার্জিন নিয়ে নন্দীগ্রামের আসনে ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী জিততে চলেছেন। গোটা বাংলায় পরিবর্তন করতে হবে। আর সেই পরিবর্তনের প্রাথমিক উপায় নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারাতে হবে। নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারালে আপনা আপনি গোটা বাংলায় পরিবর্তন হয়ে যাবে।”

এদিন শাহ নারীর নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে নন্দীগ্রামের এক ঘটনার উদাহরণ দিয়ে বলেন, “এখানে মমতা দিদি যেখানে রাত্রি যাপন করছেন তার থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে এক মহিলাকে নির্যাতন করা হয়েছে। যেখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নারী নিরাপত্তার’ কথা বলছেন সেখানে তার উপস্থিতিতে এই ধরনের ঘটনা ঘটলে নারী নিরাপত্তা কোথায়?” পাশাপাশি নিমতা কাণ্ডের কথা উল্লেখ করে বলেন, “কিছুদিন আগে ভারতীয় জনতা পার্টির কর্মীর বৃদ্ধা মাকে মারধর করা হয়েছিল। কাল তিনার মৃত্যু হয়েছে। তাও তিনি নারী নিরাপত্তার কথা বলে যাচ্ছেন। গোটা বাংলা চুরি-ডাকাতি আর চাইছে না। বাংলা চাইছে সিএএ- এর মাধ্যমে সুনাগরিকের নাগরিকত্ব পেতে। বাংলার মানুষ চাইছে এখানকার বিকাশ হোক, রোজগার মিলুক, পড়াশোনা ভালো ভাবে হোক, বাংলার পরিকাঠামোর বিকাশ হোক এটাই চাইছে। বাংলায় সোনার বাংলা মোদীজির নেতৃত্ব গড়া হবে।” শেষে শাহ নন্দীগ্রামের ভোটারদের আহ্বান জানিয়ে বলেন, “আমি আজ নন্দীগ্রামের মানুষদের কাছে আবেদন করতে চাইছি যে আপনাদের দায়িত্ব শুধু শুভেন্দু অধিকারীকে জেতানো নয়। আপনারা জেতাবেন তো নিশ্চয়ই উপরন্তু বিশাল বড় মার্জিনে জিতাতে হবে।”

একুশের নির্বাচনে হাইভোল্টেজ নন্দীগ্রাম। একদিকে যেমন তৃণমূল- কংগ্রেসের হয়ে প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তেমনি অপর দিকে তার প্রতিপক্ষ হিসেবে বিজেপির হয়ে লড়েছেন তারই একসময়ের বিশ্বস্ত সৈনিক শুভেন্দু অধিকারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *