Breaking News

বিজেপির হয়ে প্রথম প্রচারে বেরিয়ে বিক্ষোভের মুখে শিশির

Post Views: website counter

 

 

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার উত্তর কাঁথি বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী সুমিতা সিনহার সমর্থনে বাথুড়িয়া অঞ্চলের পাহাড়পুর স্ট্যান্ডে জনসভায় যোগ দিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন সদ্য তৃনমূলত্যাগী কাঁথির সাংসদ শিশির অধিকারী।

ছেলে রাজ্যের প্রাক্তন পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দুর পর পদ্ম শিবিরে নাম লিখিয়েছেন তাঁর বাবা সাংসদ শিশির অধিকারী। ছেলের মত তিনিও সরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের হাত ধরে পদ্ম শিবিরে নাম লিখানোর পর সোমবার রাতে কাঁথিতে প্রথম বিজেপির হয়ে প্রচারে বেরিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন !

সোমবার রাতে উত্তর কাঁথির বলাগেড়িয়ায় বিজেপির হয়ে সভাতে হাজির ছিলেন শিশির অধিকারীর। আর সেখানেই শিশির অধিকারীকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তৃনমূলের কর্মী-সমর্থকরা। পাশাপাশি শিশির অধিকারীকে ঘিরে চিটিংবাজ স্লোগান দিতেও শুরু করেন তারা।

দীর্ঘদিন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা থেকে তৃণমূল কংগ্রেসকে প্রথম সারির নেতৃত্ব দিয়েছেন শিশির অধিকারী। তবে তৃণমূলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হওয়ায় শিশির অধিকারী বর্তমানে পদ্ম শিবিরে নাম লিখিয়েছেন। রবিবার অমিত শাহের সভায় যোগদান করার পর সোমবার প্রথম বিজেপির হয়ে প্রচারে বের হন শিশির অধিকারী।

সোমবার রাতে উত্তর কাঁথির বিজেপি প্রার্থী সুমিতা সিনহার হয়ে বাথুড়িয়া অঞ্চলে  সভা করার কথা ছিল শিশির অধিকারীর।  পূর্বনির্ধারিত সূচি অনুযায়ী শিশিরবাবু সোমবার সন্ধ্যায় ওই এলাকার উদ্দেশ্যে রওনা হন। শিশিরবাবু সভাস্থলের কাছে পৌঁছানো মাত্রই শিশিরবাবুকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা।  চিটিংবাজ স্লোগান তুলতে শুরু করেন তারা।

পাশাপাশি শিশিরবাবুর সামনেই বক্স বাজিয়ে উদ্দাম নৃত্য শুরু করে দেন তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা। ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা বিজেপির কর্মী সমর্থকদের মধ্যে তৃণমূলের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে ধস্তাধস্তি বেঁধে যায়।  টর্চ লাইট জ্বালিয়ে অন্ধকারের মধ্যে তৃণমূলের কর্মীদের চেনার চেষ্টা করেন শিশির অধিকারী।  মুহুর্তের মধ্যে রণক্ষেত্রে পরিস্থিতি তৈরি হয় ওই এলাকায়।  দুই দলের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ধস্তাধস্তিতে আহত হন বিজেপি দলের ৩ সদস্য। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয় কেন্দ্রীয় বাহিনী ও এগরা থানার পুলিশ।  প্রায় এক ঘণ্টা পর ওই স্থান ছেড়ে ফিরে যায় শিশির অধিকারী।

পরে শিশির অধিকারী বলেন, “সকাল থেকে কিছুজনকে মদ খাইয়ে আমাদের সভা পন্ড করার চেষ্টা করছে। আমি  আগেও এই ধরনের পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছি। আমি সকলের নাম ও ছবি তুলে নিয়েছি।  অভিযোগ জানাবো।”

অপরদিকে তৃনমূলের দাবি এটা সাধারন মানুষের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ।দলে থেকেও যে ভাবে শিশির বাবুরা দ্বিচারিতা করেছেন,তা দেখে নীচুতলার কর্মীরা ক্ষোভে ফুঁসছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *