Breaking News

নন্দীগ্রামের রামচকে তৃনমূল নেতার কনভয়ে হামলা

Post Views: website counter

 

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রাম ২ ব্লকের রামচকে  বুধবার রাতে  বিজেপি কর্মীদের হামলার মুখে পড়লো তৃনমূলের রাজ্য নেতৃত্ব।এর আগে এদিন সকালে নন্দীগ্রাম ২ ব্লকের ভেটুরিয়াতে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর গাড়ি ঘিরে ঝাঁটা হাতে বিক্ষোভ দেখিয়েছিল এলাকার মহিলারা।পরপর এই দুই ঘটনাটিকে ঘিরে উত্তেজনা ছড়ালো নন্দীগ্রামে।

অভিযোগ নন্দীগ্রামের তৃনমূল প্রার্থী মমতা ব্যানার্জীর সমর্থনে সভা সেরে ফেরার পথে রামচকে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হামলার মুখে পড়লেন যুব তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক সম্রাট তপাদার সহ তাঁর সঙ্গী সাথীরা।বিজেপির অবশ্য দাবি একটা দুর্ঘটনাকে হামলা বলে চালানোর চেষ্টা করছে তৃনমূল।যদিও এই ঘটনার পরে এলাকার তৃনমূল কর্মী সমর্থকেরা হামলার ঘটনায় জড়িত বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের দাবিতে নন্দীগ্রাম থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখায়।

বুধবার নন্দীগ্রামে একটি কর্মীসভায় যোগ দিতে এসেছিলেন সম্রাট তপাদার। সেই সভা সেরে ফেরার পথেই নন্দীগ্রাম ২নং ব্লকের রামচকে হামলার মুখে পড়েন এই তৃনমূল নেতা ও তাঁর সঙ্গীরা। অভিযোগ লাঠি-রড নিয়ে দুষ্কৃতীদের একটি দল তাঁদের গাড়ির ওপর চড়াও হয়।
জানা গেছে আহত অবস্থায় সম্রাট ও তাঁর দলবলকে নিয়ে আসা হয় নন্দীগ্রাম সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। সম্রাটের হাতে চোট ছিল। তাঁকে প্লাস্টার করাতে হয়। বাকিরাও চিকিৎসাধীন।

নন্দীগ্রাম ব্লক তৃণমূলের সভাপতি স্বদেশ দাস বলেন, বিজেপি নন্দীগ্রাম জমিন্রক্ষা আন্দোলনের মামলা খুঁচিয়ে তুলেছে। যার জেরে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে তৎকালীন জমি আন্দোলনকারী এবং বর্তমানে তৃণমূল নেতাদের নামে।ফলে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা আছে ।বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক ভাবে জমি হারিয়েছেন।এরই মধ্যে তৃণমূলের এই যুবনেতার উপরও হামলা করা হল।
বিজেপির তমলুক সাংগঠনিক জেলার সহ সভাপতি প্রলয় পাল অবশ্য দাবি করেছে কোন হামলার ঘটনা ঘটেনি।তৃণমূলের কিছু বহিরাগত প্রত্যন্ত গ্রামে গিয়ে নানা তথ্য সংগ্রহ করছে। পাশাপাশি ভোটের প্রচারও করছে। সে সব নিয়েই এলাকাবাসীর সঙ্গে কিছু মতোবিরোধ হয়। বিজেপি এর সঙ্গে কোনওভাবেই জড়িত নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *