Breaking News

দারুয়ায় সানষ্টার ক্লাবের পরিচালনায় সাড়ম্বরে বেরা উৎসব পালিত

Post Views: website counter

 

প্রত্যেক বছরের ন্যায় বছরও পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ড ছোটো দারুয়ায় সানষ্টার ক্লাবের পরিচালনায় সাড়ম্বরে বেরা উৎসব পালিত হল। কলাগাছের ভেলার উপর বাঁশ দিয়ে মাঝারের কাঠামো তৈরি করে বিভিন্ন রঙিন কাগজ দিয়ে সাজিয়ে তোলা হয়।ছোটো ছোটো মাটির প্রদীপ কপূর দিয়ে প্রজ্বলিত করে আলোর রোশনায় সাজানো হয়। বড়ো বড়ো পুকুরে ভাসিয়ে দেওয়া হয়।

দারুয়ায় সানষ্টার ক্লাবের সম্পাদক সিরাজ উদ্দিন বলেন “বেরা” একটি পারসি শব্দ, যার অর্থ মহৎ উদ্দেশ্যে নৌপথে যাত্রা।বেরা উৎসব নবাবী আমলের উৎসব।

এটি মূলত জলদেবতা ‘খোজা খিজির’-এর স্মরণোৎসব, যা মোগল আমলে নবাবদের পোষকতায় চালু হয়েছিল। অতীতের বাঙালী হিন্দু সদাগরদের বাণিজ্যযাত্রার সময়ের নানারকম উৎসব-অনুষ্ঠানের রীতিনীতিও এতে মিশেছিল।ঐতিহাসিক মুর্শিদাবাদের প্রথম এই উৎসবে সূচনা হয়। বেরা ভাসানো মুর্শিদাবাদে নবাবের আমল থেকে হয়ে আসা একটি আলোকদান উৎসব।

প্রতি বছর ভাদ্র মাসের শেষ সপ্তাহের বৃহস্পতিবারে এই দিনটি পালন করা হয়।অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সেক মনতাজ উদ্দিন, সেক মারাদোনা, সেক শামসুল, মলুউদ্দিন ও সারফরাজ উদ্দিন প্রমূখ।

প্রসঙ্গত নবাবী আমলে কলাগাছ জলে ভাসিয়ে তার উপর বাঁশ-বাখারি-ছেঁচা-চাটাই দিয়ে মিনার, তোরণ, গম্বুজ, নিশান, দুর্গ ইত্যাদির কাঠামো তৈরী করে ভাসানো হত৷ অভ্রের পাত দিয়ে তৈরী আলোতে কোরানের বাণী, মসজিদ, গাছপালা ও নানারকম মূর্তি চিত্রিত করার প্রথা ছিল। রূপালী আচ্ছাদনে আবৃত কৃত্রিম ঝাড়লন্ঠন জলযানে ঝুলিয়ে দেওয়া হত৷

মুর্শিদাবাদের লালবাগ থেকে মহীনগর পর্যন্ত গঙ্গাতীর আলোকময় হয়ে উঠত। নানাবিধ নাচগানের ব্যবস্থা থাকত। নবাবরা তাদের সভাসদ সহ প্রজাদের নিয়ে আতসবাজির প্রদর্শনী উপভোগ করতেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *