Breaking News

Breaking!! কাঁথির এক অধ্যাপিকার বিরুদ্ধে বিবাহিত যুবকের সাথে অবৈধ সম্পর্কের অভিযোগ :প্রতিবাদ করায় গৃহবধূকে মার:গ্রেফতার ২

Post Views: website counter

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি-৩ ব্লকের দুরমুঠে দেশপ্রান মহাবিদ্যালয়ের এক অধ্যাপিকার বিরুদ্ধে এক বিবাহিত যুবকের সাথে অবৈধ সম্পর্ক রাখার অভিযোগ উঠেছে ।

আরো অভিযোগ যুবকের স্ত্রী এর প্রতিবাদ করায় তাঁকে প্রানে মারার চেষ্টা করেছেন অভিযুক্ত এই অধ্যাপিকা । অভিযোগ সেই কাজে তাঁকে তাঁর পরিবারের সদস্যরা ও বিবাহিত প্রেমিক সাহায্য করে। জানা গেছে অভিযুক্ত প্রেমিক তার স্ত্রীকে নিয়ে এই অধ্যাপিকার বাড়িতে থাকতো ।প্রসঙ্গত এই যুবককে ধর্ম ছেলে পাতিয়ে নিজের বাড়িতে রেখে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তুলে এই অধ্যাপিকা।

বিয়ে করে আসার পরে নব বিবাহিতার নজরে এলে তিনি প্রতিবাদ করাতেই শুরু হয় অত্যাচার। অভিযোগ অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে কাঁথি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন গৃহবধূ অমৃতা দাস অধিকারী ।সেই অভিযোগের ভিত্তিতে অধ্যাপিকার ভাই রাজীব সাউ এবং অভিযুক্ত বিবাহিত প্রেমিক যুবক সঞ্জীব দাস পট্টনায়ককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ।

জানা গেছে গত কয়েক মাস আগে হলদিয়ার ব্রজনাথচক এলাকার বাসিন্দা অমৃতার সাথে আঠিলাগড়ির স্কুল বাজার সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা এই যুবকের নিয়ে হয় ।অমৃতা দেবীর আইনজীবিরা জানিয়েছেন সঞ্জীব দাস পট্টনায়কের বাড়ি খড়্গপুর বাইপাস সংলগ্ন এলাকায় । তবে এই অধ্যাপিকা তাকে ছেলে পাতানোয় সে আঠিলাগড়িতে ওনার সাথেই থাকতো ।

অমৃতা দাস পট্টনায়ক পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছে পাতানো মা তথা প্রেমিকার চাপে তার স্বামী সঞ্জীব দাস পট্টনায়ক তাকে বাপের বাড়ি থেকে মোটা অঙ্কের টাকা আনতে বাধ্য করে । বেশ কয়েকবার প্রতিবাদ করে কোন লাভ হয়নি।উল্টে অত্যাচারিত হতে হয়েছে । সেই কাজে তার স্বামীকে সাহায্য করেছে অধ্যাপিকা,তার ভাই রাজীব সহ পরিবারের অন্যান্যরা। এই গৃহবধূ জানিয়েছেন দিনের পর দিন ধরে চলতে থাকা অনাচার ও তার প্রতিবাদ করে অত্যাচারিত হতে হতে সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে যাওয়ায় তিনি কাঁথি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ।কেস নং ২৮১/২০,তাং ১১/৮/২০।

অভিযোগ পেয়ে পুলিশ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে । পলাতক অধ্যাপিকা ও তাঁর মা মঞ্জুরানি সাউ ও নিরঞ্জন সাউ পলাতক ।
ধৃত ২ অভিযুক্তকে বুধবার আদালতে হাজির করা হয় ।নির্যাতিতার হয়ে আদালতে সাওয়াল করেন স্বরূপ ভৌমিক,নির্মাল্য দাস, মঞ্জুর রহমান খান,ইকবাল হোসেন,ঋতব্রত দাস,প্রদীপ পন্ডা প্রমুখ আইনজীবি ।আদালত ধৃতদের জামিনের আবেদন খারিজ করে দেয় ।

অপরদিকে কলেজের ফিলোজফির এক অধ্যাপিকার বিষয়ে ওঠা অভিযোগ নিয়ে তাঁর কিছু জানা নেই বলে জানান দেশপ্রান মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ড: সুবিকাশ জানা। অধক্ষ্য জানিয়েছেন তিনি এই বিষয়ে খোঁজ নেবেন । আগামী দিনে আইন অনুযায়ী ব্যাবস্থ গ্রহন করা হবে বলেও জানান দেশপ্রান মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ড: সুবিকাশ জানা।

অপর দিকে অভিযুক্ত অধ্যাপিকার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও যোগাযোগ করা যায়নি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *