Breaking News

আত্মনির্ভর ভারত গড়ার লক্ষ্যে নিয়ে হিন্দু জাগরণ মঞ্চের মিছিল

Post Views: website counter

 

আত্মনির্ভর ভারত গড়ার লক্ষ্য নিয়ে গত একবছর করোনার সময়ে লকডাউন চলাকালীন দেশের সকল নাগরিকের খাদ্য সুরক্ষা করো না অতি মোকাবিলা এবং করোনা ভ্যাকসিন নির্মাণ, টিকাকরণ বিশ্বব্যাপী ভারত সাফল্য পেয়েছে। বিশ্বের দরবারে আত্মনির্ভর ভারতের মর্যাদা অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। এখনো অবধি দেশে এক কোটিরও বেশি নাগরিকের টিকাকরণ এর পাশাপাশি বিশেষ প্রতিবেশী দেশের ভারত এই ভ্যাকসিন সরবরাহ করছে।

আগামী বিধানসভা নির্বাচনে মানুষের একটাই দাবি পশ্চিমবঙ্গের চাকরি নেই তাই লক্ষ লক্ষ মানুষকে অন্য রাজ্যে যেতে হচ্ছে। ১০ বছরের টেট থেকে শুরু করে ডাক্তার নার্স নিয়োগ পর্যন্ত সর্বোচ্চ দুর্নীতি হয়েছে। পাশ্ব শিক্ষক শিক্ষিকা রা রাস্তায় অনশনে করে প্রান দিচ্ছেন। ১০ বৎসরের সিঙ্গুরে চাষ হয়নি, শিল্প ও আসেনি বেকারত্বের ভোলাতে কেবল ক্লাবের টাকা দেওয়া হচ্ছে। আর রাজনীতিতোলা বাজের দল তৈরি হয়েছে। তাই দেশের সন্তান দেশে থাকুক সৎভাবে উপার্জন করুক। এলাকার মানুষ এলাকায় কাজ পাক তারই লক্ষ্য নিয়েই আগামী বিধানসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী ভোট দেওয়ার আবেদন জানালেন।

হিন্দু জাগরণ মঞ্চ তাম্রলিপ্ত সাংগঠনিক জেলা হলদিয়া নাগরিক কমিটি। সাংগঠনিক রালি শুরুর আগেই উপস্থিত ছিলেন তাপস বারিক দক্ষিণবঙ্গ প্রাণ্তিয় সংগঠন মন্ত্রী হিন্দু জাগরণ মঞ্চ ।আশুতোষ মন্ডল দেবাশীষ চক্রবর্তী বুবাই ঘোষ এবং জেলা সভাপতি তাম্রলিপ্ত সাংগঠনিক জেলার তাপস মাইতি এছাড়া উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি মতিলাল দাস কার্যকরী সভাপতি শংকর নায়েক সম্পাদক অনিত করন সহ-সম্পাদক সুরজিৎ নস্কর সোমনাথ মাইতি সুকোমল নায়েক এবং শুভঙ্কর মাঝি প্রমূখ।তাদের বক্তব্যের মধ্যেই উঠে আসে আত্মনির্ভর ভারত গড়ার লক্ষ্য নিয়ে কেন্দ্রের মোদি সরকারের হাতে শক্ত করতেই পশ্চিমবঙ্গের পরিবর্তন সুনিশ্চিত করার আহ্বান জানালেন। বক্তব্যের মধ্যে তুলে ধরেন।

বর্তমান তৃণমূল সরকার রয়েছে সেই সরকারের আমলেই আইন শৃঙ্খলা অবনতি এবং রাজনৈতিক কাজ চলছে। চারিদিকে দক্ষিণবঙ্গের কামদুনি ভয়ঙ্কর ধর্ষণ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা উত্তরবঙ্গের গঙ্গারামপুরের জবা রায়,চোপড়ার মাম্পি সিং, কুমার গ্রামে প্রমিলা বর্মন ,সিতাইয়ের ভোলাচাতরা গ্রামের দশম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণ করে নৃশংস হত্যার মতো জিহাদী বর্বরতা। পক্ষপাতদুষ্ট নিয়োগের মাধ্যমে প্রশাসনের জিহাদী করণ। লাভ জেহাদ রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ, বোমা বিস্ফোরণ, বেআইনি অস্ত্র ঝনঝনানি ১৩০ জনের বেশি রাজনৈতিক কর্মী হত্যা। পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে বাদুড়িয়া দেগঙ্গা কালিয়াচক ডায়মন্ড হারবার ধুলাগড় সন্দেশখালি শীতলকুচি চোপড়ার মতো নিয়ন্ত্রণ ঘটে চলেছে হিন্দুবাদী দাঙ্গা।

স্বাধীনতার সাত দশক পরে শ্যামাপ্রসাদের পশ্চিমবঙ্গ আবার দেশভাগের জন্য দায়ী রাজনৈতিক সমীকরণ জন্ম নিচ্ছে। সেকুলার ফন্ট তকমা নিয়ে নিয়ে দেশ ভাগ মুসলিম লীগের মতো একাধিক দল নির্বাচনী ময়দানে নেমে পড়েছে। জিন্নার মত নেতারা আবার প্রকাশ্যে মিটিং মিছিল শুরু করেছে। সংখ্যালঘু ভোটের লোভে বিভিন্ন পার্টি এদের সাথে প্রকাশ্যে কিংবা গোপন আঁতাত করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। দেশের ঐক্য সংহতি অখণ্ডতার পক্ষে বিপজ্জনক। এই ধরণের অসভ্যতা অঙ্কুরেই বিনষ্ট করার জন্যই আগামী বিধানসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী তাপসী মন্ডল এর সমর্থনে চৈতন্যপুর রামপুর থেকে এক মিছিল সংঘটিত হয় সেই মিছিল সুতাহাটা গ্রাম পঞ্চায়েত হলদিয়া পৌরসভা বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে হলদিয়া বিধানসভার সিটি সেন্টার মড়ে শেষ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *