Breaking News

তৃনমূল প্রার্থীর নাম ঘোষনা হতেই বিজেপি কর্মীদের উপরে হামলা পটাশপুরে

Post Views: website counter

 

নির্বাচন এলেই পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পটাশপুরে রাজনৈতিক হানাহানি পরিচিত ছবি।শুক্রবার তৃনতৃণমূল প্রার্থীর নাম ঘোষণা হতেই বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা তৃনমূল প্রার্থীর নাম ঘোষনার সাথে সাথেই শুরু হয়ে গেল সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি!

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি দেশের আরো কয়েকটি রাজ্যের সাথে এই রাজ‍্যে বিধানসভা নির্বাচনে দিনক্ষণ ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন।তারপর থেকে আস্তে আস্তে উত্তেজনা বাড়তে থাকে আর প্রার্থীর নাম ঘোষনার পরে পরেই রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হল পটাশপুর। অভিযোগ পটাশপুর ২নং ব্লকের পঁচেট অঞ্চলের পুরষত্তোমপুর এলাকায় বিজেপির দলীয় পতকা ছেঁড়া ও বিজেপি কর্মীদের মারধরের হুমকি দেওয়া হয়েছে।আর এই ঘটনায় অভিযোগের আঙ্গুল উঠেছে তৃনমূলের বিরুদ্ধে।যার বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ বিজেপি নেতৃত্ব।

শনিবার সকালে পঁচেট এলাকার বিজেপি কর্মীরা অভিযোগ করেন , গতকাল শাসকদলের প্রার্থী ঘোষণা হওয়ার পর রাতের অন্ধকারে
পঁচেট অঞ্চলের উপপ্রধান প্রনব কর এর নেতৃত্বে তৃণমূলের কর্মীরা ওই এলাকায় টাঙানো থাকা বিজেপির সমস্ত দলীয় পতাকা ছিঁড়ে দেয়। পাশাপাশি কর্মীদের বাড়িতে গিয়ে মারধরের হুমকি দেয়।

এই বিষয়ে বিজেপির কাঁথি জেলা সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী বলেন , নির্বাচন এগিয়ে আসতেই পটাশপুর এলাকায় তৃণমূলের পায়ের তলার মাটি সরে গিয়েছে ।  তাই তারা বিজেপির দলীয় পতাকা ফেস্টুন ছিড়ে দিচ্ছে। এতে মানুষ বুঝে গিয়েছে রাতের অন্ধকারে কারা দুষ্কৃতীদের কাজ করছে। এই দলের আর কোনো ঐহিত্য নেই । যা ছিল তা সবই শেষ হয়ে গিয়েছে।

যদিও বিজেপির এই সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে পটাশপুর ২ ব্লক তৃনমূল কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদক তথা পঁচেট অঞ্চলের উপপ্রধান প্রনব কর বলেন ,  প্রত‍্যেক বছর নির্বাচন এলেই এরা সকলে আমার নামে বিভিন্ন অভিযোগ তোলেন। বিজেপি দলের কোনো সাংগঠনিক ক্ষমতা নেই।
বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল এর ফলে এই ঘটনা । তারা নিজেরাই দলীয় পতাকা , ফেস্টুন ছিঁড়ে তৃণমূল দলের অপপ্রচারের চেষ্টা করছে। তাছাড়া সাধারণ মানুষ তাদের সঙ্গে নেই , তাই এই সমস্ত অভিযোগ’কে হাতিয়ার করে তারা প্রচারের আলোতে আসতে চাইছে ।

সব মিলিয়ে ভোট আসতেই উত্তেজনা চরম আকার নিচ্ছে।তবে এলাকাবাসীর থেকে সন্ত্রাসহীন-সংঘর্ষহীন নির্বাচনের আহ্বান জানানো হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *