Breaking News

বাক স্বাধীনতা নিয়ে তৃনমূলকে প্রশ্ন নমোর,বাংলা না দেশের কথা বলছেন ?

Post Views: website counter

 

“তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ ব্রায়েন বক্তব্য রাখছিলেন। বলছিলেন, বাক স্বাধীনতার কথা, গণতন্ত্র পদদলিত হওয়ার কথা। সুন্দর-সুন্দর শব্দের ব্যবহার করছিলেন তিনি।আমি তো বুঝতেই পারছিলাম না উনি দেশের কথা বলছেন, নাকি বাংলার কথা বলছেন। আসলে উনি নিজের রাজ্যে দিনভর এগুলো দেখতে পান, তাই হয়তো সে কথাই এখানে বলে ফেলেছেন।”রাজ্যসভায় সোমবার রাষ্ট্রপতির ভাষণের জবাবি বক্তব্য রাখতে গিয়ে এভাবেই বাংলার গণতন্ত্র নিয়ে খোঁচা দিলেন প্রধানমন্ত্রী ।আগেরদিন বাংলার শিল্প শহর হলদিয়াতে দাঁড়িয়ে তৃনমূল সরকারকে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে “রামকার্ড” দেখানোর হুশিয়ারি দিয়েছিলেন তিনি ।

শুধু তাই নয়, এ রাজ্যে কেন কেন্দ্রীয় প্রকল্পগুলি কার্যকর করা হয়নি, তা নিয়েও প্রশ্ন তুললেন তিনি। বললেন, “বাংলার রাজনীতির কারণে কেন্দ্রীয় প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন না এ রাজ্যের বাসিন্দারা।”

শুধু তৃনমূল নয় দেশের সকল বিরোধী দলকে আক্রমন শানিয়ে বলেন,”গণতন্ত্র নিয়ে বিরোধীরা যা বলছেন মানুষ তা বিশ্বাস করে না। ভারত শুধু বিশ্বের সবথেকে বড় গণতন্ত্র নয়। গোটা বিশ্বের গণতন্ত্রের জননী ভারত।’’রাজ্যসভায় কংগ্রেসকে বিঁধে এদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, “এত বছর ধরে কংগ্রেস দেশকে নিরাশ করেছে। আর ওই দলের সাংসদদের কথাও আমাকে হতাশ করে।”

তিনি এদিন বলেন, ‘‘দেশে খাদ্যশস্যের উৎপাদনে রেকর্ড। শুধু কৃষি আন্দোলন নিয়ে কথা হচ্ছে। রাষ্ট্রপতির ভাষণ আত্মনির্ভর ভারতের আশা জাগায়। রাষ্ট্রপতির ভাষণ বিরোধীরা বয়কট করেছে।’’

এদিন সংসদের রাষ্ট্রপতির ভাষণ বয়কট করে বিরোধীরা। তারপর ভাষণ শুরু করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও বিরোধীদের এই পদক্ষেপ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এদিন গণতন্ত্র নিয়ে বিরোধীদের আক্রমণের পাল্টা বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘গণতন্ত্রের পথ দেখিয়েছিলেন নেতাজি। যুব সমাজকে নেতাজির আদর্শের পাঠ দেওয়া প্রয়োজন।’’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *