Breaking News

খেজুরীতে সারা রাত ধরে বোমাবাজী:অভিযুক্ত বিজেপি

Post Views: website counter

 

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরী-২ ব্লকের জনকা অঞ্চলে সন্ত্রাসের পরিবেশ সৃষ্টি করার অভিযোগ উঠলো বিজেপির বিরুদ্ধে।অভিযোগ বিধানসভা নির্বাচন এগিয়ে আসতেই সন্ত্রাস করতে এই চক্রান্ত বিরোধী দলের ।রাজ্যের শাসক দল সুত্রে জানানো হয়েছে পনিখা শিশু শিক্ষা কেন্দ্রে গত পরশু তৃণমূল কংগ্রেসের বুথ কমিটির কর্মীসভা আয়োজিত হয়। তৃনমূলের দাবি বুথ সভায় জনসমাগম ভালো হওয়ায় জনসমর্থন হারিয়ে নব্য বিজেপি হার্মাদরা পনিখা শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের চারপাশে শনিবার সারা রাত ধরে ৫০/৬০ টি বোমা ফাটায়।

অভিযোগ পরিকল্পিত ভাবে এলাকায় সাধারণ মানুষদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়াবার অপচেষ্টা করেছে বিজেপি।

আরো জানা গেছে রবিবার সকালে এলাকার বাসিন্দা কয়েকজন মহিলা কৃষি শ্রমিক মাঠে কাজ করতে যাওয়ার সময় শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের পাশে মাঠে ও ঝোপঝাড়ের মাঝে কয়েকটি তাজা বোমা অক্ষত অবস্থায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকতে দেখেন।আতংক ছড়ায়।খবর পেয়ে অন্যান্য গ্রামবাসীরা ঘটনাস্থলে ভীড় জমান।

ছুটে যান ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি দেবাশীষ দাস, স্হানীয় গ্রাম প্রধান ও অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সমর শঙ্কর মন্ডল,শ্যামল মিশ্র প্রমুখ।এই নেতারা ঘটনাস্থলে এসে উত্তেজিত জনতাকে সামাল দেন।পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ ডাঃ পার্থ প্রতিম দাস পুলিশ কে খবর দেন।

তিনি এই ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের পুলিশি তদন্তের পাশাপাশি অবিলম্বে বোমা উদ্ধার ও বিজেপি মদতপুষ্ট সমাজবিরোধী দের দৌরাত্ম্য রোধ সহ গ্রেফতারের দাবী জানান।পরে জনকা থানার পুলিশ গিয়ে তাজা বোমা উদ্ধার করে।

জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কো অর্ডিনেটার মামুদ হোসেন অভিযোগ করেন সিপিআইএম -এর দলছুট হার্মাদ ও তোলাবাজ দাদার অনুগামীরা বিজেপির পতাকাতলে সামিল হয়ে বোমা-অস্ত্র মজুত করে নতুন করে শান্তির পরিমন্ডল কে কলুষিত করতে চাইছে। সমস্ত ধরনের মজুত অস্ত্র- বোমা উদ্ধার করে বিজেপির গেরুয়া সন্ত্রাস সৃষ্টির অপচেষ্টা কে অঙ্কুরেই বিনষ্ট করার প্রশাসনিক ব্যবস্হা গ্রহণের জন্য জেলা পুলিশ ও প্রশাসনের কাছে ই-মেইল বার্তা পাঠিয়েছেন মামুদ হোসেন।

বিজেপি অবশ্য অভিযোগ উড়িয়েছে।সেই সাথে তৃনমূলের বিরুদ্ধেই তাদের কর্মীদের মারধর করার অভিযোগ এনেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *