Breaking News

শুভেন্দুর হাত ধরে বিজেপিতে আসা তৃনমূল নেতাদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ নন্দীগ্রামে

Post Views: website counter

 

মুখ্যমন্ত্রী তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রামে জনসভায় ভাষন রাখতে আসার দিন সকালে বিজেপিতে আরো প্রকট হল গোষ্ঠী কোন্দল ।রাজ্য্রের প্রাক্তন পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ট তৃণমূলের দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের বিজেপিতে যোগদান করার প্রতিবাদে আন্দোলন নামল পুরনো বিজেপি কর্মীরা ।

এর আগে বিজেপির গত ৮ তারিখের জনসভায় তৃনমূল ত্যাগী বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী, বিজেপির সর্ব ভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায,কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় সামনেই নিজেদের মধ্যে গোষ্ঠী কোন্দলে জড়িয়েছিলো বিজেপি কর্মীরা।এমনকি সেই সভায় হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েছিল নব্য ও পুরনো বিজেপি কর্মীরা।এবার সেই কোন্দল আরও প্রকাশ্যে এলো।

গত ২০১৫ সালের পর আজ সোমবার নন্দীগ্রামে আসছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অধিকারীদের বাদ দিয়ে হবে সেই সভা ।ইতিমধ্যেই শুভেন্দু অধিকারী ও তার ছোট ভাই সৌমেন্দু অধিকারী যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে ।তার মধ্যেই প্রকট আকার নিল নন্দীগ্রামে বিজেপি গোষ্ঠী কোন্দল ।

জানা গেছে নন্দীগ্রাম ২ নম্বর ব্লকের আমদাবাদ ১ পঞ্চায়েতের ১৫০,১৫১,১৫২,১৫৩ বুথের বিজেপি কর্মীরা আন্দোলনে নেমেছেন।দুর্নীতিগ্রস্ত শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ট তৃনমূল নেতাদের বিরুদ্ধে ।
আমদাবাদ-১ পঞ্চায়েতে বিজেপির ২নং দক্ষিন মন্ডলের ১৫০নং বুথের সভাপতি নান্টু কুমার মাইতি জানিয়েছেন সঞ্জয় দিন্ডা,প্রভাস ভুঞ্যা,পবন গায়েনরা রাজ্যের প্রাক্তন পরিবহন মন্ত্রী তথা বর্তমান বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ ।নান্টু বাবু অভিযোগ করেছেন এদের মাধ্যমেই দিনের পর দিন এলাকায় সন্ত্রাস,দুর্নীতির কাজ হয়েছে।অভিযোগ করেছেন এই দুর্নীতিগ্রস্তদের মাধ্যমে তাদের ওপর নানা সময়,পঞ্চায়েত নির্বাচিনে অত্যাচার চালানো হয়েছে।

এরপর এই লোকেরা শুভেন্দু বাবুর হাত ধরে বিজেপিতে আসছেন, তা আমরা পুরনো বিজেপি কর্মীরা মানতে পারছি না ।দলীয় নেতৃত্ব সেই দাবিকে গুরুত্ব না দিলে প্রয়োজনে বিজেপি ছাড়তেও আমরা রাজি আছি বলে হুশিয়ারি দিয়েছেন নান্টু বাবু ।নিজেদের দাবির সমর্থনে সোমবার সকালে সুবদী বীণাপাণি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন বিজেপির এই পুরনো কর্মীরা ।

তাঁরা হুশিয়ারি দিয়ে বলেন এখন দলের জেলা,রাজ্য ও কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ভাবুন আমদাবাদ ১ পঞ্চায়েত এলাকার বারোটি বুথের পুরনো বিজেপি কর্মীদের কথাকে গুরুত্ব দেবেন নাকি শুভেন্দু অধিকারীর কথামতো এই দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের বিজেপিতে নেবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *