Breaking News

তৃনমূলকে আক্রমন শুভেন্দুর: মায়েদের কান্না ওদের অভিশাপ হবে

Post Views: website counter

নন্দীগ্রাম পশ্চিমবঙ্গের বাহিরে নয়,ভারতের বাহিরেও নয় । যার যার নিজস্ব ধর্ম পালনের অধিকার রয়েছে বুধবার নন্দীগ্রাম হাসপাতালে গিয়ে আহত কর্মীদের সাথে দেখা করার পরে বলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

উল্লেখ্য বুধবার প্রথমে নন্দীগ্রাম সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে গিয়ে আহতদের সঙ্গে দেখা করেন শুভেন্দু। খোঁজ নেন তাঁদের শারীরিক অবস্থার। এরপর তমলুক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিজেপি কর্মীদের সঙ্গেও দেখা করেন তিনি।

মঙ্গলবার নন্দীগ্রামের বজরং কমিটির পুজোয় যোগ দিয়েছিলেন শুভেন্দু। সেখানে পুজো দিতে আসার পথে দলীয় কর্মী সমর্থকদের একটি গাড়িতে হামলা হয়েছিল। নন্দীগ্রাম-১ ব্লকের কালীচরণপুরের ভুতা মোড়ের ওই ঘটনায় অভিযোগ উঠেছিল তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

আহত কর্মীদের দেখে হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শুভেন্দু অধিকারী বলেন ২০০৭-০৮ থেকে একটা বড় শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করে আমরা তাদের হটিয়েছি ।তাদের কাছেও অস্ত্র ছিল ,ক্যাডার ছিল ,হার্মাদ ছিল ।তাও ওরা হটে গেছে।কিন্তু বর্তমান ক্ষমতাসীনেরা এখন সেটা বুঝতে চাইছেন না ।শুভেন্দু অধিকারী বলেন নিজের ধর্মের প্রতি আস্থাশীল ও পরের ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়েই গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে প্রতিবাদ করতে হয়। বলেন অনেক মহিলা গতকাল একটা ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসেছিলেন। কিন্তু তাদের কদর্য ভাষায় আক্রমণ করা হয়। তাদের উপর হামলা চালানো হয় ।হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন এই মায়েদের কান্নায় ওদের জন্য অভিশাপ হয়ে দাঁড়াবে।

শুভেন্দু জানান, মঙ্গলবারের হামলার ঘটনায় ১৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অথচ তালিকায় থাকা দুষ্কৃতীদের না ধরে অন্য ২ জনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। শুভেন্দু বলেন, আমাদের দাবি, ১৭ জনকেই গ্রেফতার করতে হবে।

এই বিজেপি নেতার দাবি ওদের ক্ষমতা হয়নি আমাকে বাধা দেওয়ার, তাই নিরীহ কর্মীদের উপর হামলা করেছে।একই সাথে পুলিশকে ফের তীব্র আক্রমন করে বলেন পুলিশ আগে ছিল রাজ্য সরকারের দলদাস, আর এখন হয়েছে ক্রীতদাস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *