Breaking News

বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির ঈগল পাখি উদ্ধার নন্দীগ্রামে

Post Views: website counter

 

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রাম ২ ব্লকের খোদামবাড়ী ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত কৃষ্ণনগর গ্রামে এক মাঠে থেকে এক বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির ঈগল পাখি উদ্ধার করে স্থানীয়রা।ঘটনাটিকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা দিপঙ্কর দাস জানান বৃহস্পতিবার বিকেলে , গ্রামের ধারে একটি মাঠে অপরিচিত পাখীটিকে দেখে এলাকাবাসীর মধ্যে চাঞ্চল্য তৈরী হয় ।পাখীটিকে দেখে এটি অসুস্থ বুঝতে পারেন তাঁরা।এই অবস্থায় পাখীটি সকলের নজরে আসে।স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন কাক অথবা কোন শিকারি পাখির দ্বারা আহত হয়ে মাঠে  দৌড়াতে দেখা গেছিল এই ঈগল পাখীকে।এর ওজন প্রায় ১০-১২কেজি হবে।

আমরা উদ্ধার করে স্থানীয়  একটি ফাঁকা দোকান ঘরে রেখে, বনদপ্তরে খবর দিই।বনদপ্তরের লোক আসলে তাদের  হাতে পাখিটি তুলে দেই। এই পাখিটি দেখার জন্য  উৎসুক জনতার ভীড় ছিল চোখে পড়ার মতো।

স্থানীয়দের অনেকের দাবী এটি একটি “গোল্ডেন ঈগল” , এবং এটি একটি বিলুপ্ত প্রায় পাখি যাতে পাখিটিকে সুস্থ করে নিরাপদ স্থানে ছাড়েন বনদপ্তরের কাছে আবেদন জানান।

ঈগল একপ্রকার বৃহৎ আকার, শক্তিধর, দক্ষ শিকারি পাখি। ঈগল সাধারণত বনে বা ঘন জঙ্গলে বসবাস করে থাকে। বানর, ছোট জাতের পাখি, টিকটিকি, হাস-মুরগী খেয়ে জীবনধারণ করে থাকে। একটি পূর্ণবয়স্ক ঈগলের ওজন প্রায় ৩০ কেজি এবং লম্বায় প্রায় ৩০-৩৫ ইঞ্চি হয়ে থাকে। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো একটি পূর্ণবয়স্ক সুস্থ ঈগল ১১,০০০ ফুট উপরে উঠতে পারে। শীতকালে এরা তুলনামুলক কম শীত এলাকা বা দেশে চলে যায়। এরা জনমানব এলাকার বাইরে এবং কমপক্ষে ১০০ ফুট উপরে বাসা তৈরি করে স্বামী-স্ত্রী উভয়ে একত্রে বসবাস করে প্রজনন ঘটায়।

বাংলায় একসময় সাদা বুকের সমুদ্র ঈগল , কুড়া বা পলাশ মেছো ঈগল, কুল্লে বা সাপখেকো ঝুঁটি ঈগল, ছোটনখের ঈগল দেখা যেত কিন্তু অধুনা তারা বিলুপ্তির পথে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *