Breaking News

বাল্যবিবাহ রোধে সচেতনতা গড়ে তুলতে গ্রামে গ্রামে ছুটছেন এক প্রধান শিক্ষক

Post Views: website counter

 

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনী ব্লকের কলাইমুড়ি নেতাজি সুভাষ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বাল্যবিবাহ রোধে সচেতনতা গড়ে তুলতে প্রচারাভিযানে  ।

অন্যান্য অনেক বিদ্যালয়ের মতো পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনী ব্লকের কলাইমুড়ি নেতাজি সুভাষ বিদ্যালয়ও বাল্যবিবাহ জনিত সমস্যায় জর্জরিত।করোনা আবহের মাঝেই মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীসহ বিদ্যালয়ের বেশকিছু নাবালিকা ছাত্রীর বিয়ে হয়ে গেছে বলে খবর।

বর্তমানে করোনা আবহে “নিউ নর্মাল” পরিস্থিতিতে অফিস আদালত, দোকানপাট, বাজারহাট খোলা থাকলেও, বিদ্যালয়ের অফিসিয়াল সমস্ত কাজকর্ম নিয়মিত চললেও, বিদ্যালয়ের স্বাভাবিক পঠন পাঠন বন্ধ । স্বাভাবিক জীবন যাপনও অনেকাংশে ব্যাহত হচ্ছে ।

অনলাইনে বা হোয়াটসঅ্যাপ ক্লাস করার মতো সঙ্গতি যেমন সবার নেই , তেমনি নেই অনলাইনে ক্লাস করার উপযুক্ত পরিকাঠামো। আর এই পরিস্থিতিতে অনেক অভিভাবক আর্থিক সংকটের দোহাই দিয়ে তাঁদের অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েদের বিয়ে দিচ্ছেন।কখনও বা অভিভাবকদের এড়িয়ে নিজেরাই বিয়ে করে নিচ্ছে কম বয়সী মেয়েরা । এক্ষেত্রে প্রশাসনের নজর এড়িয়ে তারা যে শুধু সরকারী নিয়মকে কেবল বুড়ো আঙুল দেখাচ্ছে তাই নয়, নিজেদের বিপদের দিকে ঠেলে অল্প বয়সী মেয়েরা ।

বাল্যবিবাহের এই অশনি সংকেত রুখতে বাল্যবিবাহ রোধে বিদ্যালয় পরিচালন সমিতিকে পাশে নিয়ে প্রচার অভিযান শুরু করলেন কলাইমুড়ি নেতাজি সুভাষ বিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত তরুণ প্রধান শিক্ষক সুভাষ জানা। সুভাষবাবুর উদ্যোগে বিদ্যালয় এলাকার বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে শুরু হয়েছে বাল্যবিবাহ রোধে সচেতনতা মূলক প্রচার।বিদ্যালয় পরিচালন সমিতি সদস্য, বিদ্যালয়ের সহকর্মী এবং অতিথি আলোচকদের সাথে নিয়ে গ্রামে গ্রামে গ্রামে এই প্রচারাভিযানে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সুভাষবাবু। যেহেতু চাষের কাজ চলছে তাই বেশিরভাগ অভিভাবক-অভিভাবিকাদের কাছে সচেতনতার বার্তা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে সুভাষবাবুরা বিকেল ও সন্ধ্যার সময়টাকে বেছে নিয়েছেন প্রচারাভিযানের জন্য। ইতিমধ্যে প্রচার অভিযানের অংশ হিসেবে কলাইমুড়ি,বীরভানপুর, বুড়িশোল, সেরেঙ্গডাঙ্গা, মোহনপুর,ভেলাইডাঙ্গা, শুশুনিয়া,বেনেগেড়িয়া ও শালুকা এলাকার জনগণকে নিয়ে সচেতনতা সভা হয়েছে। এই সচেতনতা সভাগুলিতে সুভাষবাবুর আহ্বানে অতিথি আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কোলাঘাটের কোলা ইউনিয়ন হাইস্কুলের শিক্ষক তথা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মেদিনীপুর কুইজ কেন্দ্র সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির সম্পাদক সুজন বেরা, কুইজ কেন্দ্রের সহ-সভাপতি তথা কেশপুরের গড়সেনাপত্যা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক স্নেহাশিস চৌধুরী, কুইজ কেন্দ্রের সদস্য, রক্তদান আন্দোলনের কর্মী তথা চুয়াডাঙ্গা হাইস্কুলের শিক্ষক সুদীপ কুমার খাঁড়া প্রমুখ।বাল্যবিবাহ জনিত সমস্যার বিভিন্ন দিক নিয়ে সচেতনতা সভা গুলিতে আলোচনার পাশাপাশি,অভিভাবক-অভিভাবিকাদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন আলোচকরা। পাশাপাশি কেন বাল্যবিবাহের মতো ঘটনা ঘটেছে সেগুলোও আলোচনা সভায় উপস্থিত জনতার কাছ থেকে জানার চেষ্টা করেন প্রধান শিক্ষক সহ অন্যান্য আলোচকরা। অভিভাবক-অভিভাবিকা সহ এলাকার জনগণ এই কর্মসূচিতে স্বতস্ফূর্তভাবে গ্রহণ করেছেন।প্রশংসা করেছেন বিদ্যালয়ের এই সময়োপযোগী পদক্ষেপকে। অভিভাবকদের বক্তব্য, বিদ্যালয় প্রশাসনের ভূমিকা সত্যি প্রশংসনীয়। তাঁদের আশা এই উদ্যোগে অবশ্যই সাফল্য আসবে ।

প্রধান শিক্ষক সুভাষ জানা বলেন, “আর্থিকভাবে ও শিক্ষাগতভাবে কিছুটা হলেও পিছিয়ে থাকা এই এলাকার মানুষের সচেতনতা অনেকাংশে বৃদ্ধি পেলেও অন্ধবিশ্বাস, কুসংস্কার এমনকি বাল্যবিবাহের মতো সামাজিক অবক্ষয় মূলক কাজ করার প্রবণতা এখনও একশ্রেণির মানুষের মধ্যে আছে ।সরকারী প্রচেষ্টা এবং বিদ্যালয়ের নানা কর্মসূচি যেমন নাটক,গান ইত্যাদি পরিবেশনের ফলে বাল্যবিবাহের আনুপাতিক হার কমলেও এখনও অনেক সমস্যা আছে । আমার বিশ্বাস,প্রকৃত শিক্ষা দিয়ে মেয়েদের অধিকার রক্ষার দিকে অচিরেই এগিয়ে নিয়ে যাবো আমরা ।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *