Breaking News

নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অনুগামী অপসারিত ব্লক সভাপতির কুশপুতুল পুড়লো তৃনমূলীরা !

Post Views: website counter

 

শনিবার সকালে মেঘনাদ পালকে অপসারিত করার পরেই এলাকায় উৎসবে মাতলো এক দল তৃনমূল কর্মী।এমনকি আনন্দে দলের নেতা মেঘনাদ পালের কুশ পুতুল পোড়ালো এই কর্মীরা !

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুক্রবার নির্দেশ মেনে শনিবার প্রাক্তন পরিবহন,সেচ ও জলসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ নন্দীগ্রাম – ১ ব্লক সভাপতি মেঘনাদ পালকে অপসারিত করেছেন তৃণমূলের পূর্ব মেদিনীপুর এই জেলা সভাপতি শিশির অধিকারী।উল্লেখ্য এই জেলাতে শাসক দলের সভাপতি পদে রয়েছেন শুভেন্দুর বাবা শিশির অধিকারী।যদিও তাঁকে দ্বায়িত্ব থেকে অপসারনের ঘোষনার ২৪ ঘন্টা পরেও তিনি এই বিষয়ে কোন লিখিত নির্দেশ দলের থেকে পাননি বলে দাবি করেছেন মেঘনাদ বাবু ।

সম্প্রতি নন্দীগ্রামে একের পর এক ‘অরাজনৈতিক’ কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন শুভেন্দু। বিজয়া সম্মেলনী থেকে ১০ নভেম্বরের সভা, সব জায়গাতেই নাম না-করে তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্বকে খোঁচা দিয়েছেন তিনি। আর ওই সভাগুলি আয়োজনের মূল কারিগর ছিলেন মেঘনাদ।তৃনমূলের গড় বলে পরিচিত পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় কিছুদিন ধরেই দল বিরোধী কার্যকলাপ চলছে বলে গত শুক্রবার সারা রাজ্যের দলীয় নেতৃত্বদের নিয়ে করা ভার্চুয়াল বৈঠকে অভিযোগ করেছিলেন মমতা।সেই বৈঠকে নন্দীগ্রাম , কাঁথি সহ কয়েকটি ব্লকের দলীয় সভাপতি বদলের নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি ।তার পরেই তাঁকে সরিয়ে নন্দীগ্রাম-১ ব্লকের নয়া তৃণমূল সভাপতি নিযুক্ত হয়েছেন স্বদেশ দাস।

এর পরেই নন্দীগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় বিরোধী গোষ্ঠীর লোকেরা উৎসবে মাতেন।অভিযোগ করে দলে থেকে দিনের পর দিন ধরে ক্ষতি করেছেন মেঘনাদ পাল ।এর জেরে মেঘনাদ পালের কুশপুতুল পোড়ানো হয় কোথাও কোথাও।যদিও এই নিয়ে তৃনমূলের কোন নেতৃত্ব কিছু বলতে রাজী হননি।

কেন্দেমারি পঞ্চায়েতের কিছু এলাকায় এমন ঘটনা ঘটেছে বলে জেনেছেন মেঘনাদ পাল ।বলেন যাদের যেমন রুচি তা করছে।আমার কিছু বলার নেই ।সেই সাথে হতাশ মেঘনাদ বলেন, “দলের প্রতি আনুগত্য আমার আজও আছে, ভবিষ্যতেও থাকবে। কিন্তু যে বদনাম দিয়ে দলের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হল তা সত্যিই কষ্টকর। আশা করব দলের জন্য যা করেছি, ভবিষ্যতে দলের নেতৃত্ব তা উপলব্ধি করবেন। আমি এই ঘটনায় অত্যন্ত মর্মাহত।’’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *