Breaking News

আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তৃনমূল ৫০টি আসন পার করবেনাঃসৌমিত্র খাঁ

Post Views: website counter

আগামী ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের সাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ৫০টির বেশি আসনে জয়ী হতে পারবেনা বলে দাবী করলেন বিজেপি যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।

পূর্ব মেদিনীপুর এর পাঁশকুড়া স্টেশন সংলগ্ন একটি গেস্ট হাউসে শনিবার হাওড়া, হুগলি ও মেদিনীপুর জেলার যুব মোর্চার জোনাল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এবং বৈঠকে যাবার আগে কোলাঘাট থেকে পাঁশকুড়া পর্যন্ত বাইক র‍্যালী করেন রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি
সৌমিত্র খাঁ, বিজেপি রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু, যুব মোর্চার কাঁথি অবজারভার তথা রাজ্য সহ সভাপতি শঙ্কুদেব পণ্ডা সহ  এই তিন জেলার যুব মোর্চার নেতৃত্বরা। আগামী বিধানসভা ভোটকে মাথায় রেখে যুব মোর্চা ও বিজেপির বিভিন্ন রনকৌশল এই বৈঠক থেকে আলোচনা হতে পারে বলে সূত্র মারফত খবর।

বৈঠকে যোগ দেওয়ার আগে সাংবাদিকদের মুখোমুখি প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে বিজেপির রাজ্য  সভাপতি সৌমিত্র খাঁ বলেন ২০২১ এর আসন্ন বিধানসভার বিজেপির যুব মোর্চার তৃণমূলকে ৫০ এর ভিতরে রাখা মূল লক্ষ্য। আর  তার জন্য রাজ্য বিজেপি যুব মোর্চা কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তৃণমূল কংগ্রেসে পিসি আর ভাইপো ছাড়া আর কারো কাজ আছে
বলে জানিনা। যত তাড়াতাড়ি রাজ্য থেকে তৃণমূল বিদায় নিবে সাধারণ মানুষের পক্ষে ভাল বলে বলেন বিজেপি রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ।

সায়ন্তন বসু বলেন- কলকাতাতে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ছবির সাথে তৃণমূল নন্দীগ্রামের বিধায়ক তথা পরিবহনমন্ত্রী  শুভেন্দু অধিকারী ছবি দেখতে পাওয়ার বিষয়ে বলেন বিজেপি দল কোনদিন কারো সাথে কারো ছবি লাগায় না এটা
তৃণমূলের কাজ। কালীঘাট প্রাইভেট লিমিটেডের স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে কাটমানি সংস্কৃতির বিরুদ্ধে বাংলা হিটলারি শাসনের বিরুদ্ধে যদি জনগণের এই যুদ্ধে শামিল হতে চাই আমাদের দলে তাকে স্বাগত জানাই।

বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং আজ সকালে বলেন যে তৃণমূল কংগ্রেসের শুভেন্দু অধিকারী সহ আরো পাঁচজন তৃণমূলের সাংসদ বিজেপি পথে। তার বক্তব্যএর বিষয়ে সায়ন্তন বসু
বলেন কালীঘাটের দুজন ছাড়া এই দলে আর কেউ মনে হয় থাকতে চায় না। আমি কারো নাম করে বলতে চাই না।শুধু আজকেই নয় প্রতিনিয়ত বিজেপিতে যোগদান করছে। তৃণমূল পার্টি আস্তে আস্তে ভ্যানিশ হয়ে যাবে, এসব ‘পিকে কে বিহার থেকে ধার
করে এনে কোন লাভ হবে না’ সাড়ে 500 কোটি টাকা যদি জনগণের খাতে দিত তাহলে মানুষের উপকার হত,বিহারের বুদ্ধি নিয়ে এসে পিকে কে এনে জনগণের সাড়ে 500 কোটি টাকা নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের কোন লাভ হবে না।আমার মনে হয়। ‘নন্দীগ্রাম থেক তৃণমূলের যাত্রা শুরু হয়েছিল নন্দীগ্রামের নদীতেই তৃণমূলের যাত্রাপথ শেষ হবে’। যেখানে তৃণমূল শুরু করেছিল সেখানেই তৃণমূল শেষ হবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *