Breaking News

মেধাবী কৃতী ছাত্র-ছাত্রীদের পাশে বাঁকুড়ার বিশ্বপ্রেমিক সংঘ

Post Views: website counter

 

মানবপ্রেমিক স্বামী প্রশান্তানন্দ মহারাজ এর ইচ্ছে ছিল আর্থিক থেকে পিছিয়ে থাকা মেধাবীদের জন্য একটি আশ্রমিক আবাসিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার। বিভিন্ন অসুবিধার জন্য এই বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করতে পারেননি মহারাজ।

তবে তিনি দুঃস্থ ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার জন্য একটি “এডুকেশন প্রমোশন স্কিম” চালু করেছিলেন। এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য , দুঃস্থ ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদান, পাঠ্যপুস্তক প্রদান। এই কাজটি তাঁরই উপস্থিতিতে এবং তাঁরই তত্ত্বাবধানে প্রতি বৎসর সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হতো।

এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই মহারাজ এর স্মৃতির উদ্দেশ্যে মেধাবী কৃতী ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহিত করতে এগিয়ে এলো বিশ্বপ্রেমিক সংঘ।
হাড়হাসড়া গ্রামের দুটি বিদ্যালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের পুরস্কার বিতরন এবং সম্বর্ধনা জানানোর এই অনুষ্ঠান ২০১৩ সাল থেকে শুরু হয়েছে। সম্প্রতি সঙ্ঘের দুই সদস্য এবং স্কুল শিক্ষক নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী এবং হেরম্বনাথ চক্রবর্তী, হাড়মাসড়া গ্রামের ঐতিহ্যবাহী দুই প্রাচীন বিদ্যালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের চার কৃতি ছাত্র ছাত্রীকে পুরস্কৃত করলেন।পুরস্কার স্বরূপ পুরস্কার প্রাপক প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীকে সুদৃশ্য ট্রফি, ইংরেজি বাংলা অভিধান, স্বামী বিবেকানন্দের ভাবাদর্শের কিছু পুস্তক, মেডেল এবং কোরোনা সতর্কতা হিসেবে এন ৯৫ মাস্ক ও স্যানিটাইজার তুলে দেওয়া হয়।

এই উপলক্ষ‍্যে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তারা তাঁদের বক্তব্যে স্বামী প্রশান্তানন্দ মহারাজের জীবনাদর্শ তুলে ধরেন। সমগ্র অনুষ্ঠানটি কোভিড প্রোটোকল মেনে অনুষ্ঠিত হয়। স্বামী প্রশান্তানন্দ মহারাজ হলেন শিক্ষাগুরু। ৪৫ বছরেরও কিছু বেশি সময় মহারাজের একনিষ্ঠ সান্নিধ্য অনেকেই লাভ করেছেন। মহারাজের জীবনাদর্শ সকলকে গভীরভাবে প্রভাবিত করেছে। এই এলাকার সাথে, বিশেষ করে এই গ্রামের সাথে মহারাজের ছিল এক আত্মিক সম্পর্ক। শিক্ষার মানোন্নয়নে তিনি ছিলেন সদা ব্রতী। এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এবং গুরুদেবের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে সঙ্ঘের সদস্য তথা স্কুলশিক্ষকদ্বয়ের শিক্ষার মান উন্নয়নে, এলাকার কৃতী ছাত্র-ছাত্রীদের পুরস্কার বিতরনের মাধ্যমে উৎসাহিত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

হাড়মাসড়া সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির সাংস্কৃতিক মঞ্চে শারদীয়া সংখ্যা প্রকাশের পরই এই পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাঁকুড়া খ্রিস্টান কলেজের পদার্থবিদ্যা বিভাগের প্রাক্তন বিভাগীয় প্রধান ও বাঁকুড়া বিশ্ব প্রেমিক সঙ্ঘের একনিষ্ঠ কর্ণধার সুদর্শন চক্রবর্তী, হাড়মাসড়া উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন সহকারী প্রধান শিক্ষক রঞ্জিত চক্রবর্তী, শিক্ষক উদ্ধব সিংহ মহাপাত্র প্রমুখ বিশিষ্ট জনেরা।এছাড়াও ছিলেন এই অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তা তথা স্কুল শিক্ষক নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী এবং হেরম্বনাথ চক্রবর্তী, উৎসব কমিটির পক্ষে শিক্ষক দেবীদাস পাত্র এবং আরো অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *