Breaking News

অবশেষে সেই নন্দীগ্রামে সরকারি মঞ্চে শুভেন্দু, তৈরি নতুন জল্পনা

Post Views: website counter

 

তাঁর নতুন দল গঠন কিংবা বিজেপিতে যোগ দানের সম্ভাবনা নিয়ে চ্যানেলে চ্যানেলে জল্পনা, সংবাদপত্রে পাতার পর পাতার খবরে কিছুটা টান পড়লো! আর কাকতালীয় হলেও সত্যি সেই জল্পনায় রাশ টানার প্রক্রিয়া নন্দীগ্রামে দাঁড়িয়েই করলেন শুভেন্দু অধিকারী।

করোনা আবহের মধ্যে বর্তমান রাজ্য রাজনীতির মূল আলোচনার বিষয় হয়ে উঠেছে পরিবহন,সেচ ও জলসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক অবস্থান কি,তাই নিয়ে।শুভেন্দুকে গত কয়েক মাস ধরে দলের কোন কর্মসূচীতে সে ভাবে দেখা যায়নি, কোনো সরকারি মঞ্চেও পাওয়া যায়নি তাঁকে। যা থেকে রাজ্য রাজনীতিতে জল্পনা তৈরি হয়েছিল তবে কি শুভেন্দুর দলবদল সময়ের অপেক্ষা?

এই  জল্পনা নিয়ে যখন গোটা রাজ্যের রাজনৈতিক মহল তোলপাড় ঠিক তখনই গত শনিবার নন্দীগ্রামের এক অরাজনৈতিক বিজয়ের সম্মিলনী অনুষ্ঠানের মঞ্চের শুভেন্দু তিনি তার অনুগামীদের নিজের মুখ থেকে কিছু না শোনা পর্যন্ত বাজারি খবরে কান না দেওয়ার কথা বলেন শুভেন্দু। সেই সাথে কারো নাম না করে কিছু ইঙ্গিতবাহী মন্ত্যব করেন তিনি ।শুভেন্দুর সেই বক্তব্য সামনে আসার পরে রাজ্য রাজনীতিতে আরো আলোড়ন পড়ে ।নানান সম্ভাবনা নিয়ে যখন হাজারো আলোচনা চলছে রাজ্য জুড়ে, ঠিক সেই সময়ে,সেই নন্দীগ্রামের এক সরকারি অনুষ্ঠানে দেখা গেল শুভেন্দুকে।

যা থেকে ফের রাজনৈতিক মহলে তৈরি হয়েছে নতুন জল্পনা। তবে কি দলের বিশ্বস্ত সৈনিক শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল- কংগ্রেসেই থাকছেন? এই প্রশ্নও রবিবারের পর থেকে ঘোরাফেরা করছে রাজনৈতিক মহলে।

গত কয়েক মাস আগে পশ্চিম মেদিনীপুরের একটি সরকারি অনুষ্ঠানের মঞ্চে অনুপস্থিত থাকতে দেখা দিয়েছিল শুভেন্দুকে। যেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। উল্টে অন্য এক অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছিল শুভেন্দুকে। যা থেকে শুরু হয় জল্পনা।

এর ঠিক বেশ কয়েক মাস পর তুমুল জল্পনার মাঝে এবার নিজের জেলা পূর্ব মেদিনীপুরেই শুভেন্দুকে দেখা গেল সরকারি অনুষ্ঠান মঞ্চে। রবিবার সন্ধ‍্যায় হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের অর্থানুকূল্যে নন্দীগ্রাম ১ ব্লকের হোসেনপুর ব্রিজ থেকে রাজারামচক শিক্ষানিকেতন পর্যন্ত বসানো পথবাতির উদ্বোধন করেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। যেখানে মন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের ভাইস চেয়ারম্যান বিধায়িকা ফিরোজা বিবি, উন্নয়ন পর্ষদের প্রশাসক পি হরিশঙ্কর প্রমুখ।

এদিন শুভেন্দু মঞ্চ থেকে বলেন, “২০১১ সালে রাজ্যে নতুন সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদ নন্দীগ্রামের ১৭ টি অঞ্চল জুড়ে ধারবাহিকভাবে যে বহুমুখী উন্নয়নমূলক কাজ করছে, সেই কাজে সংযোজিত হল এই পথবাতি। মাসে মাসে এই পথবাতির জন্য প্রয়োজনীয় বিলের টাকা হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদ দেবে।” তিনি আরও বলেন, “এই এলাকায় আমার অনেক দিনের যাতায়াত। হয়তো প্রতিদিন, প্রতি সপ্তাহে আমাকে পাওয়া যায়না। কিন্তু আমার দায়িত্ব বোধ আছে যে কখন কখন আসতে হয়। কখন মানুষের কাছে পৌঁছাতে হয়।”

সবমিলিয়ে দীর্ঘদিন পর রবিবার শুভেন্দুর সরকারি অনুষ্ঠান মঞ্চে উপস্থিত হওয়া যেন রাজনীতির এক নতুন মোড়। ফলে আগামী দিনের শুভেন্দুর অবস্থান কি তা সময়ের অপেক্ষা !

২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের আগে আরো ইঙ্গিতবাহী হয়ে উঠছে নন্দীগ্রাম !

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *