Breaking News

করোনা সংক্রমন ঠেকাতে নিজেদের গ্রামেই প্রথমবার পূজার আয়োজন করলো মৎস্যজীবিরা

Post Views: website counter

 

মারন ভাইরাস করোনা গ্রাস করেছে সারা পৃথিবী এই দেশ তথা বাংলার প্রায় সকল প্রান্ত ।প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে এই মারন ভাইরাসে।কেউ ফিরে আসছে সুস্থ হয়ে,আবার কেউ কেউ প্রয়াত হচ্ছেন।এই সময়ের মধ্যেই এসে পড়েছে দূর্গোৎসব।স্বাভাবিক কারনে পুজার মন্ডপে মন্ডপে মানুষের ভীড় বাড়লে পুজা পরবর্তী সময়ে এই মহামারি চরম আকার নেবে।

আবার চারিদিকে মায়ের আরাধনার সময়ে বাড়িতে বসে থাকাও সম্ভব নয় ।সেই সমস্যা মেটাতে এবার নিজেদের পাড়াতেই পুজার আয়োজন করলো মৎস্যজীবিরা। দ্বাদশের স্কুল পড়ুয়া গ্রামের ছেলে শিবুরামের গড়া দুর্গা মূর্তিতে শারদ উৎসবে ব্রতী রাঘুসর্দারবাড় জলপাই( শৌলা ) গ্রামের শতাধিক মৎস্যজীবী পরিবার ।

বঙ্গোপসাগরের ঠেউ এসে আছড়ে পড়ে কাঁথি-১ ব্লকের এই মৎসজীবী গ্রাম রাঘুসর্দারবাড় জলপাই (শৌলা ) তে । কাঁথি শহর থেকে দশ কিমি দূরের এই প্রান্তিক গ্রামের অধিকাংশ মানুষের সারা বছরের বেশিরভাগ সময় কাটে সমুদ্রে মৎস্য আহরণে -জীবিকার প্রয়োজনে ।

কতিপয় স্কুল পড়ুয়া ও কিছু যুবক গ্রামের বরিষ্ঠ মানুষদের প্রস্তাব দেন , এই করোনা অতিমারিতে লকডাউন কালে শহরের ভিড় এড়াতে গ্রামেই দুর্গা পূজার আয়োজন করতে চাই ।

গ্রামবাসীর সহমতের ভিত্তিতে নব কিশলয় সংঘের কচি কাঁচারা গ্রামের মানুষের বাড়ি বাড়ি সাহায্য চেয়েই এই পূজার আয়োজন । প্রত্যেকেই সাধ্যমতো সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন । মূর্তি বানিয়েছে ওই গ্রামেরই ছেলে নয়াপুট হাইস্কুলের দ্বাদশের ছাত্র শিবুরাম নাটুয়া ।

শিবুরাম স্কুলে সরস্বতী মূর্তি গড়ে হাত পাকিয়ে ছিল । প্রতিমা শিল্পী শিবুরামের কথায় , হেডস্যার আমাকে বিদ্যালয়ে পিঠ চাপড়ে সাহস দিয়ে স্কুলের সরস্বতী মূর্তি গড়তে দিয়েছিলেন , তাই আজ সাহসে ভর করে দুর্গা মূর্তিও গড়ে ফেললাম । হেডস্যার বলতেন , মানুষ পারেনা এমন কোন কাজ পৃথিবীতেই নেই ! যা কিছু দেখছিস , সবই মানুষেরই সৃষ্টি ।

মহাষষ্ঠীর পুন্যলগ্নে মানুষের ভালোবাসার আহ্বানে সাড়া দিয়ে বিদ্যালয়ের দত্ত্বক নেওয়া এই গ্রামের পূজা উদ্বোধন করেন নয়াপুট হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক বসন্ত কুমার ঘোড়ই । মণ্ডপের ফিতে কেটে – প্রদীপ প্রজ্বলন করেন উপস্থিত অতিথিবৃন্দ । উপপ্রধান ধনঞ্জয় প্রামাণিক , গ্রামের ছেলে ও মানিক পাড়া হাইস্কুলের শিক্ষক রাজারাম মাঝি , কাঁথি চন্দ্রামনি ব্রাহ্ম বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা স্বপ্না রানী মন্ডল ঘোড়ই , গ্রামের বরিষ্ঠ নাগরিক লঙ্কেশ্বর মাঝি প্রমুখ ।

প্রধান শিক্ষক বসন্ত কুমার ঘোড়ই  পূজা উদ্যোক্তা কুড়ি জন যুবকের হাতে কুড়িটি আম্রপালি আমের চারা তুলে দেন ।অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন এলাকার বিশিষ্ট সমাজসেবী বাসুদেব মাঝি ।

নব কিশলয় সংঘের সম্পাদক খোকন মন্ডল ও সভাপতি অসীম বেরা জানান গ্রামের এই পুজোর দিনগুলিতে দূরত্ব বিধি মেনে , মাস্ক ও স্যানিটাইজার ব্যবহার করে মাত্রই আরাধনার পাশাপাশি মা বোনদের ও শিশুদের বিভিন্ন ক্রীড়া অনুষ্ঠান ও পুরস্কার প্রদানের ব্যবস্থা থাকবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *