Breaking News

আমরা কজন উইমেন্স’স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের এর থিম সং “জয় মা জয় দুর্গা”

Post Views: website counter

ইন্দ্রজিৎ আইচ

কথায় বলে নারী শক্তির জয়।আবার যে নারী চুল বাঁধে সে রান্নাও করে। আবার সেই নারী হল দেবী দুর্গা। এই নারীরাই আসল মানুষ, যারা সমাজ জীবনের চালিকা শক্তি। জন্ম থেকে শিশুকে লালন পালন, ঘরে বাইরে সোমান তালে নানান কাজ, সংসার পাশাপাশি সমাজ সেবা, পুজো পার্বণ এই সবেতেই নারীরা পুরুষের থেকে অনেক এগিয়ে। আজ সেই চার নারীর কথা বলবো আপনাদের। যারা আমফান এর সময় গরীব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। খাদ্য, বস্ত্র, ওষুধ সব দিয়ে বহু দুঃস্থ পরিবার ও মানুষ কে সাহায্য করেছেন।

তারাই এই বছর এই প্রথম টালিগঞ্জ করুনাময়ী ঘাট রোড,কলকাতা -৮২ ধারা পাড়ায় মাইকেল মধুসূদন পার্কের পাশে গড়ে তুলেছেন “আমরা কজন উইমেন্স’স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন” এই সংস্থা র উদ্যোগে এই প্রথম অনুষ্ঠিত হচ্ছে মহামান্য হাইকোর্টের রায় মেনে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুর্গা পুজো।

আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই সংস্থার প্রেসিডেন্ট বিপাশা সেন রায় জানালেন আমরা মোট চার জন মহিলা মিলে এই পুজো ও নানা রকম সমাজ সেবা করছি এই করোনা র সময় কালে। এই বছর আমফান এর সময় কাল থেকে ভাবনা শুরু। এই বছর এই দুর্গা পুজোয় আমরা বহু গরীব মানুষ কে শাড়ি দিয়েছি। আমরা সকলেই নানান পেশায় আছি, কিন্তু সমাজ সেবা মূলক এই ওয়েল ফেয়ার এর মাধ্যমে হয় এবং এই কাজের মাধ্যমে আমরা সত্যি কারের নারী শক্তির প্রচার ও করছি। এই বছর থেকে আমরা দুর্গা পুজো শুরু করলাম আদালত ও সরকারী গাইড লাইন ও স্বাস্থ্য বিধি ও স্যানিটাইজার ব্যবহার করে ও দূরত্ব বজায় রেখে। আমাদের এবারের পুজোর বাজেট ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা। আমাদের পুজো উদ্বোধন  করেন মন্ত্রী সুজিত বসু, এমপি দোলা সেন ও পৌরমাতা রত্না সুর।
আমাদের ভাইস প্রেসিডেন্ট হলেন পৌলমী সাহা। কোষাধ্যক্ষ রাখী ভট্টাচার্য ও সম্পাদক হলেন
স্বাগতা চক্রবর্তী।এই আমরা চার জন মিলে পুরো পুজো ও গরীব মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছি, আমরা তেমন বহু মানুষের সহযোগিতা পেয়েছি ও পাচ্ছি।

প্রেসিডেন্ট বিপাশা সেন রায় জানালেন তিনি নিজে একজন সংগীত শিল্পী।তার ভাবনায় ও ছয় বন্ধু মিলে এই পুজোর একটি থিম সং “জয় মা জয় দুর্গা” উদ্ভোধন হল আজ। এই থিম সং এর আনুষ্ঠানিক প্রকাশ করলেন জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী নচিকেতা চক্রবর্তী ও অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। উপস্থিত ছিলেন দমদম এর পৌরপিতা  মৃগাঙ্ক       ভট্টাচার্য।  সকলেই এই প্রথম এই চার মহিলার অসাধারণ উদ্যোগ কে সাধুবাদ জানান। তাদের হাত দিয়ে শাড়ি দেওয়া হয় গরীব দুস্থ মানুষের হাতে।

ছিলেন প্রিয়াঙ্কা রায়, অতিন ভট্টাচার্য সহ নানা গুণী মানুষজন। সব মিলিয়ে আমরা কজন উইমেন’স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের এর এই কাজ এই সকল নারী শক্তির বিকাশ ঘটুক, পাশাপাশি সমাজের অশুভ শক্তির বিনাশ হোক ও করোনা নামক এই মহামারী দূর হোক এই কামনা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *