Breaking News

লোকাল ট্রেন চালু করার দাবিতে হকারদের বিক্ষোভ বারাসাত স্টেশনে

Post Views: website counter

 

উৎসবের মরসুম।ঘরে ঘরে নতুন জামা কাপড় কেনার ধুম পড়ে গেছে।অথচ আর্থিক সংকটের কারনে তাদের পক্ষে বাড়ির ছোটদের জন্যেও একটা নতুন কিছু কেনার সামর্থ নেই ।তাঁরা বিগত পাঁচ-ছয় মাস ধরে কর্ম হীন ।কারন মারন করোনা ভাইরাসের সংক্রমন ঠেকাতে বন্ধ আছে ট্রেন চলাচল।এই অবস্থায় নিজেদের অন্ন সংস্থানের দাবিতে সোমবার বারাসাত রেল স্টেশনে লোকাল ট্রেন পুনরায় চালু করার দাবিতে বারাসাত স্টেশনের স্টেশন মাস্টার এর কক্ষের বাইরে প্ল্যাকার হাতে নিয়ে হকাররা বিক্ষোভ দেখায়।

মূলত তাদের দাবি যাত্রীসাধারণের সুবিধার্থে ও হকারদের সুবিধার্থে পুনরায় লোকাল ট্রেন চালু করতে হবে, বিক্ষোভের পর স্টেশন মাস্টারের কাছে তাদের লিখিত অভিযোগ নিয়ে ডেপুটেশন দেন।

তাদের বক্তব্য অবিলনে লোকাল ট্রেন চালু করতে হবে। আন্দোলনকারীরা বলেন ট্রেন পরিষেবা বন্ধ থাকায় আমরা আট মাস ধরে অনাহারে দিন কাটাচ্ছি ।এর উপর উৎসব মরসুম ঢুকে পড়ায় বাড়ির ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের মুখের দিকে তাকানো যাচ্ছেনা।আন্দোলনকারী হকারেরা বলেন এই মানসিক যন্ত্রনা সামলে আমরা আর পেরে উঠছি না। আমাদের সংসার নির্ভর করে এই হকারি করে।

তাঁরা বলেন আমাদের সন্তানদের মন ও শরীর ভালো না।আন্দোলনকারী হকারেরা বলেন পরিবারের সদস্যদের দুই বেলা দুই মুঠো খাওয়ার তুলে দিতে, অসুস্থ হলে চিকিৎস্যক কে দেখাতে, ছোটদের পড়াশুনার পেছনে অনেক খরচ করতে হয়, অথচ আমাদের উপার্জন নেই আমরা কোথা থেকে এই খরচ করব।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তাঁরা বলেন, ট্রেন যদি না চালু করে তাহলে আমাদের মৃত্যুবরণ করতে হবে, আর এর দায়ী নিতে হবে রেল কর্তৃপক্ষকে।

আন্দোলনকারী হকারেরা আরো বলেন বাস চলছে, বাসে গাদাগাদি করে মানুষ যাচ্ছে, তখন করো না হচ্ছে না, আর ট্রেন চালালে করণা হবে এটা আমরা মানতে পারছিনা, তাই আমাদের দাবি অবিলম্বে লোকাল ট্রেন চালু করতে হবে, আমাদেরকে ট্রেনে উঠে হকারি করতে দিতে হবে, তা না হলে আমরা প্রানে মারা পড়বো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *