Breaking News

ঘুমন্ত অবস্থায় ছাদ থেকে পড়ে গিয়ে মৃত্যু যুবকের

Post Views: website counter

 

প্রদীপ কুমার সিংহ

রাত্রে অন্যান্য দিনের মত ছাদের উপর ঘুমিয়েছিলো গ্রিল মিস্ত্রিরা। গভীর রাত্রি আনুমানিক দেড়টার সময় নীচে চিৎকার শুনতে পেয়ে মিস্ত্রিদের ঘুম ভেঙ্গে যায়। সঙ্গে সঙ্গে তারা উঠে দেখে ছাদের নিচে মাটিতে পড়ে তাঁদের একজন সহকর্মী কাতরাচ্ছে। স্থানীয়দের নিয়ে তাকে সঙ্গে সঙ্গে বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎস্যার জন্যে নিয়ে যায় অন্যান্য গ্রীল মিস্ত্রীরা।সেখানেই চিকিৎসকরা দুর্ঘটনাগ্রস্থ গ্রীল মিস্ত্রীকে দেখে মৃত বলে ঘোষণা করে। মৃতের নাম রবিন প্রিয়াদা।চাঞ্চল্যকর এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার গভীর রাতে বালিগঞ্জে পন্ডিতিয়ায়।

জানা গেছে এই গ্রীল মিস্ত্রীরা গত ১০ বছর ধরে একসঙ্গে সবাই কাজ করছ্র। মৃত গ্রীল মিস্ত্রী রবিনের বাড়ি বারুইপুর থানা অন্তর্গত ধবধবি মদনপুরে।

গত দু-তিন মাস হয়েছে এরা বালিগঞ্জে পন্ডিতিয়ায় একটি নির্মীয়মান বাড়িতে কাজের জন্য যায়। সেখানেই রোজকার এর মত অন্য সঙ্গীদের সাথে রাতে ছাদে ঘুমাতো রবিনও।

বন্ধুদের সূত্রে খবর শুক্রবার গভীর রাতে রবিন ছাদ থেকে পড়ে গেলো। পড়ে যাওয়ার পর রবিন বেঁচে ভহিলো। এমতাবস্থায় সঙ্গীরা তাকে নিয়ে কলকাতা অন্য কোন হাসপাতালে যেতে পারেনি। কারণ হিসেবে বন্ধুরা বলছে বাড়ির লোকজন দেখাশুনার বড়ই অসুবিধা হবে। তাই বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালে রোগিকে নিয়ে এসেছে। হাসপাতালের চিকিৎসকরা রবিনকে দেখে মৃত বলে ঘোষণা করেন। বারুইপুর থানায় খবর দিলে বারুইপুর থানার পুলিশ রবিনের দেহটিকে ময়নাতদন্তে জন্য পাঠায়।

মৃত্যুর সংবাদটি রবিনের বাড়িতে গেলে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

তবে রবিন নিজে ছাদ থেকে পড়েছে, না কেউ ঠেলে ফেলে দিয়ে খুন করেছে এই নিয়ে তার পরিবার সহ আত্মীয়দের মধ্যে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।তাঁরা পুলিশকে জানিয়েছেন সেই কথাও।এই ব্যাপারে বারুইপুর থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে বলে পুলিশ সুত্রে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *