Breaking News

এ বছর পুজোর আমেজ থাকলেও পরিবেশ নেই

Post Views: website counter

 

বিশ্বজিৎ দাস 

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের ফলে পশ্চিমবঙ্গে লকডাউন যখন প্রথম দিকে শুরু হয় তখন অনেকেই ভেবেছিলেন যে, এবছর দুর্গাপুজো হবে না।পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ভ্রান্তধারণা পরিষ্কার করে বলেন যে, করোনাকালীন আবহের মধ্যেও পুজো হবে।আর মাত্র কয়েকটা দিন বাকি দুর্গাপুজো হতে।এখন থেকেই উৎসবের আমেজ গায়ে মাখছেন অনেকেই।তা বলে তো আর করোনাকে থোড়াই কেয়ার করা চলে না।তাই করোনাতঙ্কের মধ্যেই কীভাবে উৎসব পালন হবে তা নিয়ে কিছুদিন আগেই স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর (এসওপি) জারি করছে কেন্দ্র সরকার।

কেন্দ্রের এই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, মুখে মাস্ক না থাকলে মণ্ডপে ঢুকতে দেওয়া হবে না। মণ্ডপে ঢোকার আগে তাপমাত্রা পরীক্ষা করা বাধ্যতামূলক।সেই সময় যদি কারোর উপসর্গ ধরা পড়ে, তাহলে তাঁকে মণ্ডপে ঢুকতে দেওয়া হবে না।কনটেনমেন্ট জোনে এবছর উৎসবই পালন করা চলবে না। সেখানকার বাসিন্দারা অন্য এলাকার পুজোতে অংশ নিতেও পারবেন না। এছাড়া নির্দেশিকায় বলা হয়েছে,কনটেনমেন্ট জোনে কোনও অনুষ্ঠান হবে না। শুধুমাত্র কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে উৎসব পালন করা যাবে। যাঁরা কনটেনমেন্ট জোনের কাছে থাকেন, তাঁদের বাড়িতেই উৎসব পালনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বয়স্ক মানুষ অর্থাৎ ৬৫ বয়সের উর্ধ্বে প্রবীণ, কোমর্বিডিটি থাকা মানুষ, অন্ত্বঃস্বত্ত্বা মহিলা এবং ১০ বছরের কম শিশুদের বাড়িতে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।কিন্তু এ বছর আগের বছরের মতো পূজার লাইন রাখা যাবে না।

রাজ্যজুড়ে প্রতিনিয়ত করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সুস্থতা সংখ্যাও। কিন্তু প্রতিনিয়ত আক্রান্তের সংখ্যা ভাবিয়ে তুলছে সাধারণ মানুষকে। এরকম পরিস্থিতিতে পুজো খুব কাছে চলে এলেও করোনা আবহে ঘোরাফেরা কতটা নিরাপদ হবে তা নিয়েও সংশয় থাকছে। তবে এ বছর অনেক পুজো কমিটি পূজোর আনন্দকে মাটি হতে দেবেন না।তারা লাইনে দাঁড়িয়ে পুজো দেখার জায়গায় সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে পুজো দেখার ব্যবস্থা করছেন।

বাকি বছরের তুলনায় এ বছর পুজোর আমেজটা পুরোটাই আলাদা তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এবছর মা দুর্গার কাছে সাধারন মানুষের হয়তো প্রার্থনা থাকবে”আমাদের কিচ্ছু চাইনা।তুমি কেবল করোনা ভাইরাসকে বিদায় দাও।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *