Breaking News

সংবাদ মাধ্যমের দু:স্থ কর্মীদের পাশে সাংসদ মিমি

Post Views: website counter

 

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বারবার করে বলছেন রাজ্যের কোন মানুষ কোথাও যেন অভুক্ত না থাকে। সাংবাদিক হলেও সেও তো মানুষ। করোনা দুর্ভোগ বা দুর্জোগ যাই হোক তার জন্য তাকেও মোকাবিলা করতে হচ্ছেই। সাংবাদিকদের মধ্যেও অনেকের কোন কাজ নেই, আমি বাইরে যাচ্ছি মানে সকলে যে যাচ্ছে তা কিন্তু নয়।

বিশেষ করে যারা সাংস্কৃতিক খবর করে অথবা যারা আমার মত ছোট সংবাদমাধ্যম তাঁরা সকলেই ঘরে গৃহবন্দি অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে। কিন্তু আমরা সকলেই সহকর্মী বা সহযোদ্ধা তাই সকলের পাশেই সকলের দাঁড়ানো উচিত বলেই আমি মনে করি, যদিও এটা অনেকে নাও মনে করতে পারেন। তাঁরা হয়তো ভাবতেই পারেন নিজেরটা হলেই কেল্লা ফতে। গত দুদিন আগে আমি বুলান ঘোষ আমাদের একজন সহকর্মীকে ফোন করে খবর জানতে চাইতেই সে জানায় তাঁর বৃদ্ধা মায়ের ওষুধ প্রায় শেষের দিকে স্থানীয় দোকানেও তা পাওয়া যাচ্ছে না।এছাড়া তো খাদ্যাভাব আছেই। আমি সাথে সাথে তাঁকে আশ্বস্ত করে বলি মায়ের কথা যখন তাঁর ওষুধ বন্ধ হবে না।

যেভাবেই হোক আমি তা ব্যবস্থা করে দেবো সাথে নিজের ক্ষমতার মধ্যে খাবারের ব্যবস্থাও করবো। আমি যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ মিমি চক্রবর্তীর আপ্ত সহায়ক অনির্বান ভট্টাচার্যের সাথে কথা বলে বুলানের মায়ের দুটো ওষুধের ব্যবস্থা করে দিই যাতে তাঁকে ১০ দিন ওষুধ ছাড়া থাকতে না হয়। এছাড়া চাল, ডাল, আলু ও সোয়াবিনের ব্যবস্থা করে দিই যাতে অন্তত এক সপ্তাহ তাদের সংসারে অভাব না হয়। কোন সহকর্মী এই অবস্থায় খাবারের অভাবে থাকবে সেটা সম্ভব নয়।আজ সাংসদ মিমি চক্রবর্তীর ‍অফিসে বুলান ঘোষকে নিয়ে এসে তাঁর হাতে দুজনের জন্য এক সপ্তাহের চলার মত খাদ্য ও বুলানের মায়ের জন্য প্রয়জনীয় ওষুধ তুলে দিতে পেরে নিজেকে তৃপ্ত অনুভব করলাম।

বুলানের হাতে তাঁর পরিবারের প্রয়োজনীয় সামগ্রী তুলে দেন সাংসদ মিমি চক্রবর্তীর আপ্ত সহায়ক অনির্বান ভট্টাচার্য। ধন্যবাদ জানাই সাংসদের আপ্ত সহায়ককে, ফের একবার কুর্নিশ জানাই মিমি ‍চক্রবর্তীকে। লকডাউন পরিস্থিতিতে মিমি চক্রবর্তী নিজেও গৃহবন্দি কিন্তু যাদবপুর শুধু নয় ভারতের বহু অংশে মিমি ইতিমধ্যে দুর্ভোগে থাকা মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন। আমার জন্য আজ দ্বিতীয়বার সাংসদ মিমি চক্রবর্তী আবেদনে সাড়া দিলেন যার জন্য তাঁর কাছে আমি কৃতজ্ঞ।এভাবেই আমার এলাকার আশেপাশে থাকা কোন সংবাদমাধ্যমের কোন বন্ধুর যদি এই অবস্থায় কোন অসুবিধার কথা শুনি আবার এভাবেই তাঁর পাশে থাকার চেষ্টা করবো। হয়তো কাল আমারও এরকম সাহায্যের প্রয়োজন হবে।বুলান শুধু আমার সহকর্মী নয়, আমার ছোট ভাইয়ের মত। আজ আমি তাঁকে শুধুমাত্র এই পরিস্থিতিতে সহযোগিতা করেছি মাত্র, কোন দয়া, দান বা প্রতিদান নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *