Breaking News

২৬/১১-র মূলচক্রী পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গী হাফিজ সঈদকে পাক আদালতে শাস্তি ঘোষণা

Post Views: website counter

পাকিস্তানের মদতপুষ্ট হাফিজ সঈদ রাষ্ট্রপুঞ্জ ঘোষিত সন্ত্রাসবাদী।সন্ত্রাসবাদীদের অর্থ সাহায্য করার অপরাধে মাত্র ৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হল কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদী হাফিজ সইদকে। আজ পাকিস্তানের সন্ত্রাসদমন আদালত এই ঘোষণা করে।

পাকিস্তানে নিষিদ্ধ সংগঠন জামাত-উদ-দাওয়ার প্রধান হাফিজ সইদের নামে অন্তত ২৩ টি মামলা চলছে। পাক পাঞ্জাব প্রদেশের সন্ত্রাসদমন বিভাগ তার বিরুদ্ধে জঙ্গিদের আর্থিকভাবে সাহায্যের অভিযোগে এফআইআর দায়ের করেছিল। তার ভিত্তিতে এদিনের শুনানিতে সন্ত্রাসদমন আদালত আজ এই রায় শুনিয়েছে।

রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ তার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করায় ২০১৭ সালে পাকিস্তান হাফিজ এবং তার চার সহযোগীকে আটক করে। তবে মাত্র ১১ মাস পর নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে তাকে ছেড়েও দেওয়া হয়। সেই থেকে পাকিস্তানের মাটিতে তাকে অবাধে ঘুরে বেড়াতেই দেখা গিয়েছে। শুধু তাইই নয়, ভারতবিরোধী  একাধিক সভা, সমিতিও করতে দেখা গিয়েছে সইদকে।

সাড়ে পাঁচ বছর করে দু’টি মামলায় ১১ বছরের কারাদণ্ড ছাড়াও ১৫ হাজার টাকা করে মোট ৩০ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানাও করা হয়েছে। সঈদের জামাত-উদ-দাওয়া আসলে লস্কর-ই-তৈবা (LeT)-র অংশ। ২০০৮ সালে মুম্বই হামলা চালিয়েছিল এই লস্কর। যে হামলায় ৬ আমেরিকান-সহ মোট ১৬৬ জন নিহত হন। এর প্রেক্ষিতে হাফিজকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ২০১২ সাল থেকে তার মাথার দাম ধার্য রয়েছে ১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

২০১৯ সালের জুলাই মাসে মুম্বই হামলার এই মূলচক্রী হাফিজ সঈদ-সহ আরও কয়েক জনের বিরুদ্ধে মোট ২৭টি এফআইআর রুজু হয়। এই এফআইআরগুলি দায়ের করে পাকিস্তান পুলিশের কাউন্টার-টেররিজম ডিপার্টমেন্ট বা সিটিডি। তার ভিত্তিতেই গ্রেফতার হয় জামাত-উদ-দাওয়ার প্রধান।

আজকের এই শাস্তিদান আসলে যে স্রেফ ভাঁওতা, তেমনটাই মনে করছে আন্তর্জাতিক মহলের একটা বড় অংশ। একমত ভারতও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *